অনুবাদ:ভারতের সংবিধান (মূল হস্তলিখিত ও অলঙ্কৃত রূপ)/প্রথম অংশ

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভারতের সংবিধান  (১৯৪৯) 
ভারতের সংবিধান সভা, ইংরেজি থেকে অনুবাদ করেছেন উইকিসংকলন
প্রথম অংশ
Constitution of India (calligraphic) 009.png

প্রথম অংশ
রাজ্যসংঘ ও তাহার এলাকা

১. (১). ভারত, অর্থাৎ ইন্ডিয়া, একটি রাজ্যসংঘ হইবে।

 (২). রাজ্যসমূহ ও তাহাদের এলাকা প্রথম তফসিলের ক, খ ও গ অংশে উল্লিখিত বর্ণনা অনুযায়ী হইবে।

 (৩). ভারতের এলাকার অন্তর্ভুক্ত হইবে —

(ক) রাজ্যগুলির এলাকা;
(খ) প্রথম তফসিলের ঘ অংশে বর্ণিত অঞ্চলগুলির এলাকা; এবং
(গ) অন্যান্য যে সকল অঞ্চল অধিগৃহীত হইবে।

২. সংসদ ইচ্ছামত ও উপযুক্ত শর্তে আইন প্রণয়নের মাধ্যমে রাজ্যসংঘে নূতন রাজ্য অন্তর্ভুক্ত বা গঠন করিতে পারিবে।

৩. সংসদ আইন প্রণয়নের দ্বারা —

(ক) কোনো রাজ্যের এলাকা সংকুচিত করিয়া সেই এলাকা লইয়া, অথবা দুই বা ততোধিক রাজ্য বা রাজ্যখণ্ড সংযুক্ত করিয়া, অথবা কোনো রাজ্যের কোনো অংশের সঙ্গে নূতন এলাকা সংযুক্ত করিয়া নূতন রাজ্য গঠন করিতে পারিবে;
(খ) কোনো রাজ্যের অধিভুক্ত এলাকার আয়তন বৃদ্ধি করিতে পারিবে;
(গ) কোনো রাজ্যের অধিভুক্ত এলাকার আয়তন সংকুচিত করিতে পারিবে;
(ঘ) কোনো রাজ্যের সীমানা পরিবর্তন করিতে পারিবে;
(ঙ) কোনো রাজ্যের নাম পরিবর্তন করিতে পারিবে:

তবে রাষ্ট্রপতির সুপারিশ ব্যতীত এই সংক্রান্ত কোনো বিলই সংসদের কোনো কক্ষে উত্থাপন করা যাইবে না এবং বিলের প্রস্তাব যদি

রাজ্যসংঘের নাম ও এলাকা৷

নূতন রাজ্যের অন্তর্ভুক্তি বা গঠন৷

নূতন রাজ্যের গঠন এবং বিদ্যমান রাজ্যের এলাকা, সীমানা ও নাম পরিবর্তন৷

Constitution of India (calligraphic) 011.png

প্রথম তফসিলের প্রথম বা দ্বিতীয় অংশে বর্ণিত এক বা একাধিক রাজ্যের সীমানা বা নাম পরিবর্তন সংক্রান্ত হয়, তবে সেই বিলের উত্থাপন এবং বিষয়বস্তু, উভয় বিষয়েই রাষ্ট্রপতি সংশ্লিষ্ট রাজ্য বা রাজ্যসমূহের বিধানমণ্ডলীর মতামত সুনিশ্চিত করিবেন৷

৪. (১) প্রথম বা দ্বিতীয় ধারায় বর্ণিত যে কোনো আইনেই আইন কার্যকরী করিবার নিমিত্ত প্রথম ও চতুর্থ তফসিল সংশোধনীর উপযুক্ত ব্যবস্থা থাকিবে এবং সংবিধান যে সকল ক্রোড়পত্রমূলক, আনুষঙ্গিক ও পরিণামী বিষয়সমূহকে প্রয়োজনীয় মনে করিবেন তাহারও ব্যবস্থা থাকিবে (এইরূপ আইনে প্রভাবিত রাজ্য বা রাজ্যসমূহ হইতে সংসদ এবং বিধানমণ্ডলীতে প্রতিনিধিত্বের ব্যবস্থাও ইহার অন্তর্গত)।

 (২) পূর্ব-উল্লিখিত কোনো আইনই ৩৬৮ ধারা অনুযায়ী সংবিধান সংশোধন বলিয়া বিবেচিত হইবে না।

প্রথম ও চতুর্থ তফসিলের সংশোধনী এবং ক্রোড়পত্রমূলক, আনুষঙ্গিক ও পরিণামী বিষয়সমূহের জন্য ২ ও ৩ ধারার অধীনে প্রণীত আইন৷