আনন্দ-তুফান/প্রণাম

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন

প্রণাম।

পিয়া মাতৃ-সুধা, সুকুমার কুমার যেমতি
হাসে খেলে জননীর কোলে,
হরষে খুলিয়া নিজ প্রাণ;—
তেমতি ভকতবৃন্দ লভি’ ভবানীরে—হৃদিমাঝে,
ভাসে সবে আনন্দ-তুফানে!
হাসে খেলে আপনারি মনে,
বাহ্যজ্ঞানে দিয়া বিসর্জ্জন;
স্বপ্নে যথা করে স্বপ্নাশ্রিত।
জ্ঞানবান্[১] না পেয়ে সন্ধান, কহে;–
“একি! একি দেখি পাগলের খেলা?
নাহি মন্ত্র, নাহিক শৃঙ্খলা,
করিল কাহার পূজা?
কিরূপে পূজিল তাঁরে?
নিবেদিল কিবা উপচার?
বলিদান না হেরি নয়নে!
নাহি দিল প্রতিমায় ভোগ!
হাসে কাঁদে আপনা আপনি।”

আহা, নিরখি এ আত্মহারা-‘জ্ঞানবান’ জীবে,
ভক্তগণ ক'ন আর্ত্তস্বরে, আখি মুদি’;–
“ধন্য রে কুহক তোর, মায়া কুহকিনী!
ভাল ভ্রমে ভুলা’লি মানুষে;–
নাশ মা সংসার, শিবে, অশিবনাশিনি!
কর জীবে কর পরিত্রাণ!
নাশ মা ‘মায়ার’ মায়া,
হাস মা ঈশানি—শেষ হাসি!
সৃষ্টি স্থিতি যা’ক রসাতলে।
প্রণমি মা চরণে তোমার,
এই বর দাও দয়াময়ি,—দীন সুতে।



  1. এ জ্ঞানবান্ শব্দের অর্থ যাহারা সাদৃশ বাহ্যজ্ঞানসম্পন্ন।