কবিতা (কেশবচন্দ্র কুণ্ডু)/শান্তি

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন



শান্তি।

নিশি দিন আমি
কেন কেঁদে মরি
নাই নাই বলে,

অন্তর-যামি
সে যে আহা মরি
আমায় কি ভুলে?

সুখের কায়াটি
শুখায়েও গিয়া
কায়াটি ছেড়ে রে!

যেমন ফুলটি
গন্ধে শুধু রয়
প্রণয় পাত্রেরে

হৃদয়ে হৃদয়ে
সে যে রে আমার,
নয়নেতে নয়;

আমা পানে চেয়ে
লয়ে রূপ তার
আলো করে রয়।

নিশি দিন আমি
কেন কেঁদে মরি
নাই নাই বলে?

অন্তর-যামি
আহা মরি মরি
সে কি মোরে ভুলে?

আমার ছাড়িয়া
আমার আমার
সে কোথা গিয়াছে,

স্মৃতিতে জীইয়৷
জীবনেতে তার
তেমনি সে আছে।

সেই আধ ভাষ
সেই মৃদু হাস
দেহের মাধুরী

কোথা না প্রকাশ
কোথা না বিকাশ
পরাণ ভিতরি।

নিশি দিন আমি
কেন কেঁদে মরি
নাই নাই বলে?

অন্তর-যামি
আহা মরি মরি
সে কি মোরে ভুলে

উদয়ামুদয়
ভেদ চাঁদের রে
নয়নে যে চায়

ভেদটি কোথায়
হৃদয়ে যে হেরে
চাঁদ চিরোদয়।

স্বকাম সাধন
বাহ্য জগতে
ইন্দ্রিয় কুহক।

নয়ন-জুড়ান
প্রতিমা-পূজাতে
আছে কিবা সুখ!

নিশি দিন আমি
কেন কেঁদে মরি
নাই নাই বলে?

অন্তর-যামী
আহা মরি মরি
সেকি মোরে ভুলে

সুখের যোজনা
বিধির বিধান
যা কিছু সকলে;

দুঃখের কিছুনা
কর দরশন
প্রাণ মন খুলে;

প্রতিমা পূজার
মিছার আমার
আশাটী যে ছেড়ে

পাই অধিকার
মানস পূজার।
আমি সাধু যেরে!