পাতা:অক্ষয়কুমার বড়াল গ্রন্থাবলী.djvu/৫২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২৪ অক্ষয়কুমার বড়াল-গ্রন্থাবলী কোথা সে নিকুঞ্জ-ছায়া—অলস পরশ-খেলা ? কোথা মৃন্থ-কল্লোলিনী, এ মরু-মধ্যাহ্ন-বেলা ? তৃষায় ফাটিছে প্রাণ, কই প্রেম-পুণ্য-জল ? চারিদিকে মরীচিকা হাসিতেছে খল খল । এস, বর্ষ, এস তুমি, তুমি নিদাঘের শেষ । ল’য়ে এস অঙ্ক-রাশি, ঘুচাও এ তৃষা-ক্লেশ । ল’য়ে এস আর্দ্র শ্বাস, স্তব্ধ দৃষ্টি, মান হাসি ;– নাহি আশা, নাহি সাধ,—সুধু কেঁদে ভাসাভাসি । Μay, 88 Ιατι, Σνbυ Ι [ কনকাঞ্জলি’ পৃ. ১৭-১৮ “নিদাঘে” কবিতা দ্রষ্টব্য।—সম্পাদক ] প্রৌঢ় বনে বনে ফিরিতেছি, পাখী আর গাহে না ; নয়নে নাহি কি আর প্রণয়ের রাগ ? বনে বনে ফিরিতেছি, ফুল আর চাহে না ; কপোলে নাহি কি আর চুম্বনের দাগ ? ঘরে ঘরে ফিরিতেছি, শিশু আর হাসে না ; অধরে নাহি কি আর কল্পনার ভাষা ? দ্বারে দ্বারে ফিরিতেছি, নারী কাছে আসে না ; হৃদয়ে নাহি কি আর সৌন্দৰ্য্য-পিপাসা ? কাছে কাছে ফিরিতেছি, সখা আর ডাকে না, নিতে দিতে পারি না কি সুখ-দুখ আর ? পাছে পাছে ফিরিতেছি, কেহ কাছে থাকে না ; হারায়ে কি ফেলিয়াছি বঁাশরা আমার ? বেড়াইব ঘুরে ঘুরে ঘাটে মাঠে পথে কি, আদি-মধ্য-অন্ত-হারা যেন ছায়া-খেলা — জীবন-সায়াহ্নে এই, বিশাল জগতে কি নিঃসম্পর্ক মেঘমত একেলা—একেল !