পাতা:অক্ষয়-সুধা - অক্ষয়কুমার দত্ত.pdf/৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

১৮ অক্ষয়-সুধা সংশোধন উপকারসাধনে সযত্ন ও সমর্থ হওয়া, আমাদের মুখের কার্য্য ও সৌভাগ্যের বিষয় বলিয়া বিবেচনা করা কর্ত্তব্য। বন্ধুর পাপাস্তুর উৎপাটন করা সর্বাপেক্ষা গুরুতর কর্ত্তব্য কর্ম্ম। আমরা তাহার যত প্রকার উপকার-সাধন করিতে পারি, তন্মধ্যে কোন প্রকারই উহার তুল্য কল্যাণকর নয়। মনুষ্যের পক্ষে মিত্রের দোষ কোন পদার্থ ধর্ম্ম অপেক্ষায় হিতকারী নহে; অতএব হৃদয়াধিক প্রিয়তম সুহৃনের হৃত-প্রায় ধরন্থ উদ্ধার করিয়া দেওয়া অপেক্ষা অ্য কোন প্রকারে তাহার অধিকতর উপকার করিতে সমর্থ হওয়া যায় না॥ যে সময় যাহাকে বন্ধুত্ব -পদে বরণ করা যায়, সেই সময়ে তিনি যথার্থ সচ্চরিত্র থাকিলেও, পরে অসচ্চরিত্র হওয়া অসম্ভব নহে। দ্মিনুষ্যের মন নিরন্তর একরূপ থাকা সহজ নয়; পুণ্য- পদবীতে প্রমণ করিতে করিতে, দৈবাৎ পদ-স্থালন হইয়া, বিপথগামী। হইবার সম্ভাবনা আছে। বন্ধুজনের এতাদৃশ অকল্যাণকর বিড়ম্বনা। ঘটিলে, তাহাকে পুণ্যপথে পুনরানয়ন করিবার নিমিত্ত সাধ্যানুসারে যত্ন করা কর্ত্তব্য। পাপাসক্ত ব্যক্তিকে হিত-বাক্য কহিলে, কি জানি সে বিপরীত ভাবিয়া রুষ্ট ও অসন্তুষ্ট হয়, এই বিবেচনায় অনেকে মিত্রগণের দোষ সং শোধন করিতে প্রবৃত্ত হন না; কিন্তু তাহাঁদের এরপ ব্যবহার উচিত। ্যবহার নয়। পীড়িত ব্যক্তি কটু ও তিক্ত ঔষধ ভক্ষণ করিতে সম্মত না হইলেও, তাহাকে ঐ সমুদায় রোগনাশক সামগ্রী সেবন করান যেমন অবশুই কর্ত্তব্যঅধর্ম্মস্বরূপ মানসিক রোগে রুগ্ন ব্যক্তিকেও উপদেশ-ঔষধ সেবন। করান, সেইরূপ অবস্তাই কর্ত্তব্য ও পুণ্য কর্ম্ম। সে বিষয়ে পরামুখ হইবে, বন্ধুত্ব-ব্রত লজঘন করা হয়। তাহার সন্তোষসাধন ও রোগোৎপত্তি নিবারণ উদ্দেশে গৃহবচনে সুমধুরভাবে উপদেশ দেওয়া বিধেয়। যদি তিনি বন্ধুত্ব। গুণের প্রকৃত মর্যাদা গ্রহণ করিতে ও আমাদের উপদেশ-বাক্যের অভিসন্ধি