পাতা:অক্ষয়-সুধা - অক্ষয়কুমার দত্ত.pdf/৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

সাহিত্য – পরিশ্রম ৩১ e gs less see a page can be givg আপন প্রকৃতি পর্যালোচনা করিয়াও কর্ত্তব্যাকর্ত্তব্য অবধারণ করেন। না। বিবেচনা করিয়া দেখিলে স্পষ্ট প্রতীত হয়, উল্লিখিত ভোগাভিলাষী মহাশয়দিগের এবং পরোপজীবী নির্ম্মা ব্যক্তিদিগের সংখ্যা যত বৃদ্ধি পাইবে, তাহাদের পোষণার্থ অপর ব্যক্তিদিগকে তত প্রকারভেদে পরিশ্রম স্বীকার করিতে হইবে। সকলেই স্ব স্ব পরিশ্রম আচরণীয়। ক্ষমতামুরূপ কর্ম্ম করিলে সকলের ভারের লাঘব হয়। কিন্তু কেবল স্বহস্তে হল-চালন ও থনিত ব্যবহার না করিলে যে সংসারের উপকার করা হয় না, এমত নয়॥ ধনশালী মহাশয়েরা আপনাদের অর্থব্যয় ও বুদ্ধি পরিচালন করিয়া, সহস্র প্রকারে লোকের উপকার করিতে পারেন। তাহাদের এই উভয় উপায় দ্বারা জন-সমাজের এবৃদ্ধি সাধনে। যত্ন করা সর্বতোভাবে কর্ত্তব্য ও নিতান্ত আবশ্যক। কায়িক ও মানসিক পরিশ্রম, উভয়ই হিতকারী। ঘাহারা বুদ্ধিবলে নূতন শিল্পযন্ত্র প্রস্তুত ও তৎসম্বন্ধীয় কোন অভিনব তত্ত্ব আবিষ্কৃত করিয়াছেন, তাহারা সংসারের মহোপকারী মহাশয় মনুষ্য। যাহারা বাচনিক উপদেশ। দিয়া অথবা গ্রন্থ রচনা করিয়া, লোকের ভ্রম নিবারণ, কায়িক ও মানসিক চরিত্র-সংশোধন ও জ্ঞানোন্নতি সম্পাদন করিতে প্রবৃত্ত শ্রম সমভাবে। উপকারী থাকেন, র্তাহারা ভূলোকের শুভাকাঙক্ষী বন্ধুগণের মধ্যে অগ্রগণ্য। যেমন উষাকালে সুকুমার অরুণ প্রভা পূর্বদেশে প্রকাশিত হইয়া, উত্তরোত্তর পশ্চিম প্রদেশে বিকীর্ণ হয়, সেইরূপ ঐ সমস্ত মহানুভব মনুষ্যের জ্ঞান ও ধর্ম্ম-প্রভাব ক্রমে ক্রমে। দেশ-বিদেশে প্রচারিত হইতে থাকে। ধনশালী মহাশয়ের। যে, স্বীয় ভোগাভিলাষ খর্ব করিয়া জন-সমাজের শ্রীবৃদ্ধি-সাধনার্থে সাধ্যানুসারে যত্ন ও পরিশ্রম করেন না, এটি তাহাদের