পাতা:অক্ষয়-সুধা - অক্ষয়কুমার দত্ত.pdf/৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

৩২ অক্ষয়-ক্ষুধা

নিকৃষ্ট প্রবৃত্তি-সমূহের অতিমাত্র উত্তেজনারই কার্য্য। ইহাকে তাহাদের। অত্যন্ত অযশষ্কর অধর্মের মধ্যে গণিত করিতে হয়। ধনশালীর তাহাদের বুদ্ধি ও ধর্ম-প্ররত্তি সমুদায় প্রবল নিকৃষ্ট। এমবিমুখতা ইহার কুফল। প্রবৃত্তির নিকটে পরাভূত হইয়া রচিয়াছে। এদেশীয়। ধনবান ব্যক্তিরা অনেকেই যাদৃশ অলীক ব্যাপারে অর্থব্যয় করেন, এবং যেরূপ কর্মের অনুষ্ঠান করিয়া সমধিক সময় নষ্ট করিয়া থাকেন, তাহ স্মরণ হই লে, দুঃসহ দুঃথতাপে তাপিত হইতে হয় এবং একেবারে স্বদেশের প্রতি বিরক্ত হইয়া স্বজাতয় লোককে ধিক্কার দিতে হয়। বিদ্য!শিক্ষা বিষ্ঠা অমূল্য ধন। বিদ্যা শিখিলে হিতাহিত বিবেচনা করিয়া আপনার ও অন্যের দুঃখ-হ্রাস ও জুথবৃদ্ধি করিতে পারা যায়। কি ইতর, কি ভদ্র, কি ধনী, কি নিধন, কি বালক, কি বৃদ্ধ– সকলেরই ব্যিানুশীলন করা উচিত। পৰ্বতনিবাসী অসভ্য লোকদিগের ও পূর্ণাঙ্গ শিক্ষার সর্ব্বদেশীয় ইতর লোকদিগের অবস্থা যে এত মন্দ, আদর্শ বিদ্যাশিক্ষা না করাই তাহার প্রধান কারণ। কিরূপে শরীর সুস্থ ও স্বচ্ছন্দ রাখা যায়, কিরূপে পরিবার প্রতিপালন ও সন্তানগণকে শিক্ষা দান করিতে হয়, পিতামাতা, প্রাতাভগিনী প্রভৃতি স্বজনবর্গের প্রতি এবং আত্মীয়, বন্ধু ও অপর সাধারণ সকলের প্রতি কি রূপ ব্যবহার। করিতে হ8, কিরূপে প্রকৃষ্ট পদ্ধতিক্রমে কৃষি ও বাণিজ্য-কার্য নিৰ্বাহ