পাতা:অক্ষয়-সুধা - অক্ষয়কুমার দত্ত.pdf/৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

সাহিত্য-সুশিক্ষিত ও অশিক্ষিত লোকের মুখের তারতম্য ৪৩ পুষ্প, ফলাদির অভ্যন্তরে কীশ কৌশল বিমান রহিয়াছে ও কতপ্রকার আশ্চর্য্য ক্রিয়াই বা নির্বাহিত হইতেছে, এবং কোন জাতি দ্বারা কিরূপ উপকারই বা উৎপন্ন হইতে পারে, তৎসমুদায় পর্য্যালোচনা করিয়া চমৎকার সংবলিত মুখামৃতরসে অভিষিক্ত হন, এবং প্রত্যেক বিষয়ের অনুশীলন করিবার সময়ে করুণাময় পরমেশ্বরের পরমাস্তৃত কৌশল প্রতীতি করিয়া, কৃতজ্ঞ-হৃদয়ে মনের সহিত ধন্যবাদ করেন। যে তিমিরাচ্ছন্ন নিশীথ-সময়ে অজ্ঞ লোকেরা অশেষবিধ বিভীষিকা ভাবনা করিয়া ভীত হইতে থাকে, সে সময়ে তিনি নিভৃত স্থানে অবস্থান পূৰ্বক গগনমণ্ডলে নয়নদ্বয় নিয়োজন করিয়া, অসীম বিশ্ব-ব্যাপারের অনুশীলনে অনুরক্ত হইতে পারেন। আমরা যে প্রকাও ভূমিখণ্ডের উপর অধিষ্ঠিত রহিয়াছি, তাহাগিরি, কানন, পও, পক্ষীমেঘ ও বায়ুসংবলিত অপরিসীম আকাশমাৰ্গে জ্যোতির্বিদ্যায় প্রচণ্ডবেগে ঘূর্ণায়মান হইতেছে, ইহা চিন্তা করিয়া, অন্তঃকরণ বিকসিত করিতে পারেন। তিনি বাসনাবশ্বে চন্দ্র-মণ্ডলে উপনী ত হইয়া, উচ্চ পৰ্বত, গভীর গরউন্নত শিখর, গিরিচ্ছায়া, বন্ধুর ভূমি ইত্যাদি অবলোকন করতে পারেন। ক্রমশঃ উদ্ধদিকে উত্থিত হইয়া চক্র-চতুষ্টয়-পরিবৃত বৃহস্পতি, বৃহত্তর চন্দ্রাষ্টক ও বিশাল-বলয়-ত্রয়-পরিবেষ্টিত শনৈশ্চর, ছয় চক্র-সহকত হশেৰ্ম গ্রহ এবং চক্র দ্বয়-সংবলিত নেপচুান নামক অপূর্ব ভূবন দৰ্শন করিয়া পরম পুলকিত-চিত্তে বিচরণ করিতে পারেন। পরে গ্রহমণ্ডলীপরিবেষ্টিত প্রচণ্ড সূর্য্যমণ্ডল পশ্চাদ্ভাগে পরিত্যাগ-পূৰ্বক সহস্র সংক্র কোটি কোটি নক্ষত্রলোক অবলোকন করতঃ অণুপ্রল-বদ্ধ ও অক্লিষ্ট- পক্ষ বিহঙ্গের ন্যায় অসীম আকাশমওল পর্যটন করিতে পারেন। গগনমণ্ডলের যাবতীয় ভাগ দূরবীক্ষণ সহকারে মানব-জাতির নেত্রগোচর হইয়াছে, তদুদ্ধ সমস্ত নভঃপ্রদেশ সংখ্যাতিরিক্ত পরমাত জীবলোকে পরিপূর্ণ বলিয়া প্রতীতি করিতে পারেন, এবং অপার মহিমার্ণৱ মহেশ্বরের