পাতা:অধিকার-তত্ত্ব.pdf/১০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ఫి శి অধিকার-তত্ত্ব । ৭ । ঈশ্বর সকলেরই পিভা—এই ভাবে ' ঐরূপ স্নেহ ও ভক্তির কার্য্যকে ভ্রাতৃভাব বলা যাইতে পারে । সে ভ্রাতৃভাবে আপত্তি নাই, বাধা নাই। তাহা চিরকাল আছে, ও থাকিবে । ৮ । কিন্তু আধ্যাত্মিক সম উন্নতি-নিবন্ধন ভ্রাতৃভাব দুষ্পাপ্য । তাদৃশ সম-উন্নতি বহুলোকের মধ্যে একেবারে হয় না, সুতরাং সেরূপ ভ্ৰাতৃ ভাব সামাজিক হইতে পারে না । SS S BB BSBS BB BDSBBBB BBBB BBSBB BBBB মধ্যেই হইয়। থাকে, অতএব কেবল র্ত হরিদের মধ্যেই ভ্রাতৃভাব স্থাপিত হইতে পারে। কিন্তু দুইজন মানবের অধ্যাত্মিক ভাব চিরকাল সম-পদে থাকে না, তজন্য একবার র্যাহারদের মধ্যে সম-উন্নতি জন্য ভ্ৰাতৃ ভাব বিরাজ করে, পুনরায় তাহাদের মধ্যে অনৈক্য দেখা দেয়। ১০ । কলিকতা ব্রাহ্মসমাজে ভ্ৰাতৃ ভাবের সুধীর ধারা বহিতেছিল, কিন্তু এখন তাহারদের মধ্যে কি বিষম বিরোধ উপস্থিত ! এখন ব্রাহ্মদিগের মধ্যে দুইটি প্রধান সম্প্রদায় । এক সম্প্রদায় মনে করিতেছেন যত সম্ভবে স্বজাভীয় অধিকারের প্রতি হস্তক্ষেপ না করিয়া দেশ মধ্যে ব্রহ্ম, ধৰ্ম্ম প্রচার করা কর্তব্য ; অন্য সম্প্রদায় স্বজাতীয় সৰ্ব্বপ্রকার অধিকার পরিত্যাগ করিয়া সমস্ত জগতে ভ্ৰাতৃ ভাব বিস্তার করিতে উদ্যত হইয়াছেন । ১১ । ব্রাহ্মদিগের মধ্যে ঐ দুইটি দল হইয়াই যে ক্ষাস্ত হইল এমত নহে । ভারতবর্ষে ও খৃষ্টরাজ্যে যেমন डिब्ब डिन्न ' উপাসক-সম্প্রদায় আছে, ব্রহ্মদিগের মধ্যেও (.