পাতা:অনুবাদ-চর্চ্চা.djvu/১৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অনুবাদ-চর্চা وی\2) وه করিয়া ; হিমালয়ের উত্তর পাশ্বে থাকিয়া জপ করিতে লাগিলেন । সেখানেও যখন ক্রমশ তাহার অসামান্ত তেজ অসহ্য হইয়া উঠিল, তখন ইন্দ্র র্তাহাকে বিক্ষুব্ধ করিবার জন্য প্রলোভন প্রেরণ করিলেন। কিন্তু সেই আত্মসংযমী অবিচলিত রহিলেন । অনন্তর তাহার নিকটে মৃত্যুকে দূতরূপে প্রেরণ করিলেন। তিনি র্তাহার নিকটে আসিয়া বলিলেন—“হে ব্রাহ্মণ, মৰ্ত্ত্যেরা এত দীর্ঘকাল বঁাচে না, অতএব আপনি নিজের জীবন পরিত্যাগ করুন ; প্রকৃতির নিয়ম লঙ্ঘন করিবেন না।” ইহা শুনিয়া সেই ব্রাহ্মণ বলিলেন—“যদি আমার আয়ুর সীমা পূর্ণ হইয়া থাকে, তাহা হইলে তুমি আমাকে লইয়া যাইতেছ না কেন ? তুমি কিসের জন্য প্রতীক্ষা করিতেছ ? হে দেব পাশহস্ত, আমি স্বতঃপ্রবৃত্ত হইয়া নিজের প্রাণ ত্যাগ করিব না, কেন না ইচ্ছা করিয়া দেহত্যাগ করিলে অামাকে আত্মঘাতী হইতে হইবে ।” २२ ० এইরূপ বলিলে, র্তাহার প্রভাব বশত মৃত্যু যখন র্তাহাকে লইয়া যাইতে পারিলেন না, তখন যেমন তিনি আসিয়াছিলেন তেমনিই চলিয়া গেলেন। অনন্তর ইন্দ্র তাহাকে বলপূর্বক স্বর্গে লইয়া গেলেন। সেখানে তিনি সেখানকার প্রমোদসম্ভোগে বিমুখ হইয়া জপ হইতে বিরত হইলেন না । তাই দেবতারা তাহাকে পুনশ্চ ভূলোকে নামাইয়া দিলেন, এবং তিনিও হিমালয়ে প্রত্যাগমন করিলেন । সেখানে যখন