পাতা:অবলা প্রবলা.djvu/১৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৮২ | অবলা প্রবল। । , ছে কোকিল গে। শুবণে সংযোগি গণে হাসে খিলখিল গে। সহচরি মোর কেন অজে লাগে খিল গে। কেও রবে পুনঃ ডাকিছে কে কয় গে। আমি জ্ঞান-শূন্যভাবি ডাকিছে কে কায় গে। শারিখ শুক শারী সুখে রাগ গায় গে। আমার শ্রবণে যেন আগুন লাগায় গে। কাণে হাত দিয়ে প্রাণ কিছুকাল জীল গে পুনঃ কিল২ ডাকে পূনঃ উপজিল গে৷ বুঝিতে না পারি কিছু বিধি কৈল নারীগো। এ যন্ত্রণা কিন্তু আর সহিবারে নারি গে। বিচ্ছেদ বেদন বল কত বিবরই গো । মনে মর মেতে মরে মরে রই গে । মড়ার উপরে খাড়া মারে পুনঃমারে গো। একি জ্বাল প্রাণ সথি ঘটিল অামারে গো । কালী কহে এ কেবল তোম।র ভ নয় গো । ত্রিলোক তাপিত করে কৃষ্ণের তনয় গে। অথ শশিম খীর স্বামির অন্বেষণের পরামর্শ। পয়ার । এইৰূপ শশিমুর্থী রহে যন্ত্রণায় । না আইল দেশে পুনঃমনোহর রায় । সর্থীগণে ধনীকে বুঝায় অবিরত। ক্ষান্ত হও কান্ত তব হইল আগত। নাগরের স্বাসার অাশায় করে ভর। ক্রমেই ছয় ঋতু হইল অন্তর। আর কি প্রবোধ বাক্যে তৃপ্ত হয় মন। স্বামির সন্ধানে সতী সাজিল তথন । যতেক