পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । ১২৩ তেমনৃই আমরা দেশ মৃদ্ধ লোক তোমার আগমনের পথাভিমুখে छूर्कि করি। তার পর ? এ পর্যন্ত শারীরিক স্বচ্ছদে ছিলে তো ? অমর । আজ্ঞ স্থা, জগদীশ্বরের প্রসাদাৎ আর মহাশয়দের আশীবর্বাদে। মহাশয়দের সৰ্ব্বতে মঙ্গল ? - ন্যায়। তোমার কল্যাণে সকলেই শারীরিক সুস্থ আছি । অমর। সংসারের কোন কষ্ট নেই তো ? ন্যায়। সে কথা বোলতে পারিনে । তুমি যাকে যা মাসিক অবধারিত কোরে দিছলে, তাতে তুমি বিদেশ গমন পর্যন্ত আর পাইনে । তুমি যে পাঠায়ে থাক, তাও জানি । . অমর। মহাশয় ! গত বিষয় আমাকে ক্ষম কোরবেন। মহাশয়দের এ পর্য্যন্ত যা প্রাপ্য হয়েছে, ত! আমি এক্ষণে দিচ্ছি। ন্যায়। তুমি নিজ অঙ্গীকার করিবে পালন, তাহে আমাদের মনে নাহিক সংশয় । কিন্তু জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা তব নিষ্ঠুর হৃদয়, বঞ্চিয় দরিদ্র জনে হরিলা সবার জীবন উপায় । তিনি যদি সেই ধনে অতুল ঐশ্বৰ্য্য শালী হন কিম্বা রাজা ; দেবদারু বই তবু বট কভু নন। যত স্কুল যত উচ্চ হয় সেই তরু, তার শাখা পল্লবাদি তারি কলেবর বেষ্টন করিয়া থাকে, আর দেখ রাখে তাকেই ছায়াতে। অন্যে নাহি উপকার ।