পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/২৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । ૨૨ S ডাক। কেন তুমিও তো বেtললে গুপে মেয়ে মানুষ ? গোবিন । সে অামার খুসি। আমার আপনাব মানুষকে আপনি বেtললাম । এতে যদি সে মান করে, আমি ন হয় পায় ধোরে তার মান ভাঙব । আর ভাঙি আর নাই ভাঙি সে আমি বুঝব। আর কোন বেটার কি ? [ প্রস্থান । অমৃত । যথার্থই খেপেচে। ও মনে কোচ্ছে ওর ভালবাসা মেয়ে মানুষেরই কথা হোচ্ছে । ( বলদবাহন মিত্রের প্রবেশ ) (ডাকতীরের প্রতি) এহ্ ! আপনার শেষটা ছেলে ধরা হয়ে পোড় লেন ? গণেশ। বড় ছেলে নয়। ও কেমন মজার কথা সব বোল্বে এখন । বলতে বাবা অগত্তারাম ! ইঃ, এই ষে তৈয়ের যে, এ কোথায় হল ? বলদ । রোস রোস বাবা, আমার কথা বেরুচ্ছে না । গলা শুখিয়ে গেচে, এক গেলাস না টানলে আর কিছু হোচ্ছে না । ( আপনি বোতল গ্লাস লইয়া পান ) এস বাবা এখন । কোথা হল তাই জিগেস কোচ্ছ ? আজকে বেড়ে দিনটি ; মেঘে আঁধার কোরে রেখেচে, একটু একটু জলও হোচ্ছে । তাই মামার বাড়ীতে গিছলাম । সেই খেনথেকে বেড়ে কোরে টেনে আসচি, রামঘোষের বাগানে দেখি যে খাশা নিছু গুলি সব পেকে রোয়েচে । একে মদের মুখ, তায় নিছু, তায় আবার পরের বাগান ; কাজেই ব্যাড়াট টপকাতে হল । আমার এই লাটির দুটি বাড়ি মেরেচি আর বেট। এমনি বজাত ! অমনি টের পেয়ে আমাকে তেড়ে এল। আমি আর কোন দিগে যাবার যে না পেয়ে ওই বাড়াপানে দৌডুলেম। তা দেখি যে বেটা ধরে ধরে কোলে। তার পর ওর মাগ বেট ওদের খিড়কির উঠনে ধান