পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/২৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । ૨૭૭ নবম গর্ভাঙ্ক । গঙ্গাতীর গ্রেহাম সাহেবের বাঙ্গলার নিকট । ( কমলবাসিনী এবং গোপীনাথ আসীন ) গোপী । মা ! এই ત્યાઁ তৈয়ের হল । কমল । আচ্ছা ! তুমি এখন ঐ লাল বনাত খান দিয়ে চিতাটা ঢেকে রেখে, তর্কপঞ্চানন মহাশয়, মতিলাল বাবু আর ইস্কলের সাহেব বিবি, এদের সংবাদ দাও । গোপী। ইস্কলের সাহেবের বাঙলা এই যে। কমল । এই বাঙ্গলা ?—তবে তো ভালই হেয়েছে। তা যাও যাও, এদের এখানে প্রথম সংবাদ দিয়ে পরে ওদিকে যাও । [ গোপীনাথের প্রস্থান । ( গঙ্গার প্রতি কিয়ৎকাল দৃষ্টি করিয়া ) আহা ! মা ! যেমন কোন ব্যক্তি পৰ্ব্বতগুহার মধ্যে প্রবেশ কোরে পথ হারা হয়ে অন্ধকারে আকুল হয়ে ঘুত্তে ঘুতে হঠাৎ বাইরে এসে আলো দেখলে তার মন প্রফুল্ল হয়, তোমার পবিত্র তীরে এসে আমার মনের আজ তেমনি ভাব হয়েছে। অtহা, তোমার তরঙ্গের কল্লোলই বা কি সুললিত ! এখন আমার এমনি বোধ হোচ্ছে যে পাপময়ী পৃথিবীকে পরিত্যাগ কোরে কোন উৎকৃষ্ট জগতে এলেম। এখন আমার এমনি সাহস হেচ্ছে যে অামার প্রাণকাস্তের সঙ্গে দ্যাখা হবার সময় নিকট হয়েছে। এখন আমি প্রায় আমার নাথের শোক তুলে গিয়েচি, আর আমার মনে এক রকম মুখ বোধ হোচে । আহা ! যখন আমাদের বিবাহের পরে এই ঘাটে এসে পৌছে আমাদের পালকি ঐ অশ্বথ তলায় পাশাপাশি কোরে রাখলে,