পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/৩০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । ፶፭ ) ছুরিকা ধরিয়া এক ট'ন বাহির করিয়া ) এ —হু! এ যে বৃহৎ ছুরি । তবে আর রক্ষা নেই! আহা, দাদা তুমি কেন আত্মঘাতী হলে ! আমি তোমাকে ও বিষয় ছেড়ে দিতেম। অণর তোমাকে সৎপথে অনিবার যত্ন কোৰ্ত্তেম । ডিপু । অমরনাথ বাৰু! এই ভ্রাতাকে এখনও আপনার এই রূপ যত্ন ! ধন্য আপনার মহত্ব । “দন্ত জিহ্বাকে যখন কাতে পাচ্ছেন তখনই কাটুচেন, তথাচ আবার সেই জিহ্বা যখন দন্তের কিছু মাত্র অমুখ হোচ্ছে তখনই ব্যাকুল হেচ্ছেন”। তা ও কি আর শোধরায় ? ওর হৃদয়টি সমুদয় অসার । পাপ ঘুনে জরজর কোরেছে, এখন চেছে ছুলে ওতে কি আর কিছু বস্তু পাওয়া যায় ? অার দুষ্ট লোক হন্যে কুকুর, ষত দিন বঁাচবে, তত দিন ও নিজেও ঘায়ের জ্বালায় ছট চুটি করে বেড়াবে, আর দেশের লোককে কামড়ে মারবে। এমন লোকের মৃত্যু প্রার্থনীয় । ষাঁড়ে । আমার একটি কথা । মতি। চুপ্‌ চুপ! শোন শোন। র্যাড়েশ্বর বাবু কি বোলতে চাচ্ছেন। ষাঁড়ে । আমি তে কখনও কারও ভাল করি নি। এই জন্যে ভয়, অবিশ্বেস অণর মনের অসুখ এতেই আমার চির কাল গিয়েছে। যা হোক, আমি এই সময়ে যতধর পারি লোকের ভাল করি। ( শৈলবাসিনীকে লক্ষ্য করিয়া ) এই যে মেয়ে মানুষটি, ও দারোগীর কাছে ষায় নি। অtfৰ অনেক টাকা কড়ি দিতে চাই, তাতেও রাজি হয় নি, তার পর এক জন ঐ ৰাড়ীর দাসী ছিল তার দ্বারা ঐ ছেলে আনিয়ে তাকে এক ডুলিতে চড়িয়ে নিয়ে গে এজহার দেয়াই। এই গেল ওর কথা । অঙ্গর জমিদার বাবু ; আপনার যে তালুক এই গত লাটে নিলেম হয়ে গেছে, সে আমিই খাজনার টাকা দাখিল না কোরে নিলেম কোরিয়ে বিনামী ডেকে নিইচি ! তীয় কাগজপত্র আমার হাত বাকসতে আছে।