পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । 8家 তেমনি হৃদি গগণে, শশাঙ্ক নবীন প্রেমাম্পদ । প্রমোদিত করে মনে, দীন যেন পাইলে সম্পদ । কিন্তু তখনই আবার, হুতাশ সংশয় মেঘ আসি । কোরে হৃদয় অর্ণধার, বিনাশে প্রেমদ সুখ রাশি । আমার মন যখন, হেরিতেছে সেরূপ তরঙ্গ । মাতিয়ে প্রেমে তখন, করিতেছে কত মত রঙ্গ । কিন্তু কি জানি কি হয়, এই ভয় হইয়ে সমূহ । প্রেম মুখ সমুদয়, নাশিতেছে আসি মুহমু হু । অমৃত । ই, এখন আমি বুঝলেম তোমার যথার্থই প্রীতি হয়েচে । তা নৈলে তুমি এত শীঘ্ৰ মনের ভাব ব্যক্ত কোর্তে পাৰ্ত্তে না । প্রকৃতির স্বীয় অবয়বই প্রকৃতির সাক্ষী। তোমার ভাবেতেই বোধ হোচ্চে তোমার প্রণয় যথার্থ। ডাক্‌। এই অীবার আরম্ভ হলে, সেই আলো চাল কলা গন্ধ পুষ্প ধূপ দীপ। গণেশ বাৰু বোলেছেন মন্দ না । আমার ও একটুও ভাল লাগে না । বাবা ! এখন তোমার ও পাজি পুথি ঢাক, আর একটু মদ ঢাল। গোবিন । আচ্ছা, আচ্ছা, আচ্ছা । (সকলের পান ) ডাক ( চীৎকাব শব্দে বেস্বরে ) মা স্বরধনি তুমি আমার অ—ৰে। —ততার—মা—এই যে আমি । শীতল । ওকি বাবা ? টিকেদার বামুণ হলিই কালে ? ডাক্তার হলিই বেঙ্করো ? তবে এই শোন বাবা ! ( বাম হস্তে বাম গণ্ড চাপিয়া ধরিয়া, দক্ষিণ হস্ত সম্মুখে বিস্তার করিয়া তৰ্জ্জনী উদ্ধ করিয়া) ওগো মা-ভূতুমি আমার স্বরধনী, অ-বে!—ত্তার। ( সকলে চীৎকার করিয যার যথা