পাতা:অরূপরতন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অরুপরতন আলোকের খেয়া হয়ে গেল দেয়। অস্তসাগর পারায়ে ॥ ভরি’ ল’য়ে ঝারি এনেছি তো বারি সেজেছি তো শুচি হকুলে, বেধেছি তো চুল, তুলেছি তো ফুল গেথেছি তো মালা মুকুলে । ধেনু এল গোঠে ফিরে পাখীরা এসেছে নীড়ে, পথ ছিল যত জুড়িয়া জগত অ*াধারে গিয়েছে হারায়ে ॥ ( ধীরে ধীরে আলো নিলে গিয়ে অন্ধকার হয়ে গেল ) সুদৰ্শন । অন্ধকারে আমি যে কিছুক্ত দেখতে পাচ্চিলে । তুমি কি এর মধ্যে আছ ? লপথ্যে । এই তো আমি আছি । সুদৰ্শলা । আমি তোমাকে বপণ করব, সে কি না-দেখেই ? নেপথ্যে । চোথে দেখতে গেলে ভুল দেখবে—-অস্তরে দেখে মন শুদ্ধ. ক’রে | সুদৰ্শলা । ভয়ে যে আমার বুকের ভিতরটা কেঁপে উঠছে। নেপথ্যে । প্রেমের মধ্যে ভয় না থাকলে রস নিবিড় হয় না । সুদৰ্শন। এই অন্ধকারে তুমি আমাকে দেখতে পাচ্চ ? নেপথ্যে ৷ ইণ পাচ্চি । 疇