পাতা:অসমীয়া সাহিত্য.pdf/১৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


げ অসমীয়া সাহিত্য এই যাগের সাহিত্য মৌখিক জনসাহিত্যেই পর্যবসিত ছিল। অবশ্য কিছু কিছর গান লোকপরম্পরায় গীত হইয়া আজিকার যুগে নামিয়া আসিয়াছে, যেমন— ও কনি সখী মরি গল বগে বরত করে; লুইত ফেনা, মহ ফেনা, গছ নিপাতী কপৌ কণা .. বা মণিকেরির ফলকেরির গীত শঙ্কলদেব রজারে পুতেক মণিকোরর, কোলাতে খতিখন নাই.. শঙ্করদেবের উল্লেখে অনেকে ইহাকে বৈষ্ণবীয় যাগের বলিয়াই মনে করেন। বৌদ্ধচযাপদ, ডাকের বচন প্রভৃতি অনেকে অসমীয়া ভাষার ও সাহিত্যের প্যবরাপ বলিয়া দাবী করেন। সরহপা, লুইপা, মীনপা, গোরক্ষপা, কানপা, তিল্লপা, তান্ত্রিপা, কক্করী, ভুসকে ডোম্বী প্রভৃতি চৌরাশী সিন্ধাইদের বচনকে অসমীয়ার পাবার,প বলিব কিনা এ বিষয়ে যথেষ্ট সন্দেহের কাবণ আছে। লামা তারানাথের গ্রন্থ হইতে জানা যায় যে মগধগৌড় দেশ হইতে বিতাড়িত অনেক বৌদ্ধ সন্ন্যাসী পাবাঞ্চলে কুকীদের রাজ্যে আশ্রয় গ্রহণ করে। তাহারাই যে ঐদেশের ভাষা ও সাহিত্যের কিয়দংশ সঙ্গে লইয়া আসে নাই তাহা কে বলিতে পারে ? তেওগর নামে তিব্বতীয় গ্রন্থে একটি বচন পাওয়া যায়— গঙ্গা যমুনার মাঝে যে বহই নাই তহি চড়িলি মাতঙ্গি গঙ্গা ও যমুনার উল্লেখে মনে করিবাব যথেষ্ট সংগত কারণ আছে যে শৌরসেনী অপভ্রংশ ভাষার জন্ম কামরুপের বহিভাগে। সরহ ও কাছের দোহা বা ডাকাণব শৌরসেনী অপভ্রংশে রচিত। এই শৌরসেনী আধুনিক কালের বাংলা ও অসমীয়া দইয়েরই জন্মদাত্রী। লিপি হিসাবে অসমীয়া ও বাংলার ভিতর মোটেই প্রভেদ নাই। শুধু কুটিলা রীতি। সমাচারদেবের কোটালিপাড়া তাম্রশাসন, মহীপালের বাণগড় লিপি ও বিজয়সেনের দেওপাড়া প্রশসিত বাংলা অক্ষরের প্রথম চিহ্ন। আয* মঞ্জ, শ্রীমালকপের মতে বঙ্গসমতট হরিকেল গৌড় ও পন্ড্রের লোকেরা “অসরে” ভাষাভাষী। নরক ও ভগদত্ত অসরেবংশজাত। ইরানীয় “আহরে"র সহিত কোনো সংস্কৃতিগত সম্পক বাংলা ও কামরাপের ছিল কিনা জানা নাই। গ্রিয়ারসন সংগৃহীত মানিকচন্দ্রের গান, ফয়জল্লাকৃত গোরক্ষবিজয়, শাকুর মামদেব গোপীচন্দ্রের গীত, শ্যামাদাসের মীনচেতন, ভবানীদাসের ময়নামতীর গান, তৎকালীন নাথধমের জয়পতাকা বহন করিয়া সাহিত্যে অভিব্যক্ত। ডাঃ শহীদুল্লাহের মতে হিন্দী মারাঠী, ওড়িয়া প্রভৃতি ভাষায় নাথ-গীতিকা পাওয়া যায়। তিব্বতীয় ভাষায়ও আছে। সেইজন্য অসমীয়াতেও নাথ-সাহিত্য বিদামান থাকিবে তাহা আশ্চর্য নয়। কিন্তু বাংলা লিপিতে লিখিত সব নাথ-সাহিত্যই অসমীয়া সাহিত্যের অন্তৰ্ভুক্ত, এবং ইহাই অসমীয়া সাহিত্যের প্রাচীন রপ, এই দাবী কতটা যক্তিসংগত তাহার সম্বন্ধে সন্দেহের অবকাশ আছে। বৃহত্তর কামরুপের সাংস্কৃতিক পরিধির মধ্যে ময়মনসিংহ, রংপুর ও উত্তরবঙ্গের অনেকটা যন্ত ছিল এবং ভাব ও