পাতা:অসমীয়া সাহিত্য.pdf/৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ミ b অসমীয়া সাহিত্য ৩. প্রাকবৈষ্ণবী কন্দলী’ যুগ প্রাগজ্যোতিষপুরের পালবমর্ণরাজাদের পতনের পর কামরুপের ইতিহাস তমসাচ্ছন্ন। গোঁড়াধিপতি রামপালের সময় বাঙালী সৈন্য কামরুপ আক্ৰমণ করে এবং বৌদ্ধতান্ত্রিক নানা আচারবিচার কামরপে সম্প্রতিষ্ঠিত করে। আজ পর্যন্ত বিজেতাদের দ্বারা পথাপিত ময়নাগড় জাদুবিদ্যার প্রধান সথান। কুমারপালের মন্ত্রী বৈদ্যদেব পুনরায় কামর পবিজয় করেন, এবং তিঙ্গদেবকে পরাজিত করিয়া নিজ রাজত্ব স্থাপন করেন। এই রাজাই কামতারাজের পথাপয়িতা বলিয়া মনে হয়। রহমপত্রের অপর পারে দিনাজপরে হইতে দরং পর্যন্ত এই কামতা ভূখণ্ড বিস্তৃত ছিল। তেজপরে ও গোয়ালপাড়ায় প্রাপ্ত বহন তাম্রশাসন, প্রস্তর মতি (যেমন রহমা, শিব, গণেশ) ও প্রস্তরগাত্রে উৎকীর্ণ ফলক হইতে জানা যায় তদানীন্তন সেনসম্রাটদের বাংলাদেশের সঙ্গে কামতাধিপতিদের বিশেষ সংযোগ ছিল। এই সময়েই বখতীয়ার খিলিজী কামরুপ অভিযানে আসেন এবং পরাজিত হন। কানাইবরশী শিলালিপিতে আছে 'শাকে তুরগে যুগেমশে মধমাস রয়োদশে কামরপং সমাগত্য তুরস্কাঃ ক্ষয়মাযযঃে। রয়োদশ শতাব্দীর শেষভাগে কামতাপরোধিপতি দলেভ নারায়ণের নাম সাহিত্যের পষ্ঠপোষকরাপে জলজল করে। তাঁহাকে ঠিক অসমীয়া রাজা বলা যায় কি না, এ বিচার ঐতিহাসিকের, সাহিত্যিকের নয়। তাঁহার রাজসভায় হেমসরস্বতী ও হরিহরবিপ্র নামে দুইজন কবি ছিলেন। হেম সরস্বতীর প্রহাদচরিত্র বিখ্যাত । দলেভনারায়ণের উল্লেখ পাওয়া যায়। তাঁহার পত্র ইন্দ্রনারায়ণের রাজত্বকালে কবিরত্নসরস্বতী মহাভারতের দ্রোণপব অনুবাদ করেন। মহামাণিক্য বারাহীরাজের পাঠপোষকতায় মাধব কন্দলী রামায়ণ অনুবাদ করেন। "মহামাণিক্য” উপাধি থাকায় অনেকে মনে করেন এই বারাহী রাজারা ত্রিপরোধিপতি ছিলেন। পরবতীকালে বাণেশ্বর ও শক্লেশবর নামে দুই অসমীয়া কবি ত্রিপুরারাজের সভাকবি ছিলেন। ইহা রাজমালা হইতে জানা যায়। এই সময়ের পদমপুরাণ নামে একটি আখ্যায়িকায় হাসেনহাসেনের সহিত দেবী পদ্মাবতীর ভক্তদের ঘোর যুদ্ধের বিবরণ লিখিত আছে। হাসেনহাসেন বাংলার রাজা হাসেন শাহ হওয়াই সম্ভব। রাজা দলেভনারায়ণ ও তাঁহার তনয় ইন্দ্রনারায়ণদেব চিরঞ্জীব ‘পাঞ্চগৌড়েশ্বর বলিয়া খ্যাত ছিলেন। অসমীয়া সাহিত্যের কবি হিসাবে হেম সরস্বতীর নামই সব প্রথমে উল্লেখযোগ্য। জয় নমো নারায়ণ বৈকুন্ঠর পোতি। তোমার চরণে লৈলৈ সরণ সম্প্রতি ॥ প্রহসাদের উপর হিরণ্যকশিপ নানা অত্যাচার আরম্ভ করেন। ভগবানের বরে ভক্তের কিছুই হয় না। অষতহস্তী, উদ্যতফণা সপ, তপততৈল, প্রজবলিত অগ্নি, সমুদ্রের তুফান কিছুই প্রহাদকে জমকরণে পঠাইবন না পারে, অচেদ অভেদ দেহা অজর অমর। சந் হরির প্রভাবে ন জলয় বৈশবানল প্ৰহাদের গারে জেন চন্দন সিতল ।