পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/২১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


এই অতিরিক্ত অথ লোকের প্রদত্ত বত্তি হইতে এবং অনেকাংশে সরকারী তহবিল হইতে ব্যয় হয়। বতমানে যে সব ছাত্র উচ্চশিক্ষার যোগ্যতা না থাকিলেও বিশববিদ্যালয়ে বা কলেজে যায় তাহাদের মধ্যে অনেককে যদি অলপ বয়সেই তাহাদের শক্তি সামথ্যের অনরাপ নানা বত্তি শিক্ষার জন্য নিযন্ত করা যায়, তবে তাহার ফল ভালই হইবে। একদিকে যেমন ঐ অতিরিন্ত অথ অধিকতর কার্যকরী শিক্ষার জন্য ব্যয় করা যাইবে, অন্যদিকে তেমনই মেধাবী ছাত্রগণের জন্য ভাল শিক্ষার ব্যবস্থা করা যাইবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে ও কলেজে যে সব ছাত্র দলে দলে যায়, তাহাদের মধ্যে অনেকের শিক্ষা ব্যথ হয়; দেশ ও সমাজের দিক হইতেও তাহাদের কোন চাহিদা নাই এবং ইহার ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার অবনতি ঘটিতেছে।” (२) बिथ्बबिमालद्वग्नब्र शाछदम्नन्ने बनाभ‘आम्रद्वाष्प्लेग्न चिक्रिऊ बाढि একজন ক্ষীণ-স্বাস্থ্য ব্যক্তি বিশববিদ্যালয়ে শিক্ষালাভ না করিয়াও, সাহিত্য জগতে কিরাপ কৃতিত্ব লাভ করিতে পারেন, তাহার দন্টান্তস্বরুপ সভ্যতার ইতিহাস প্রণেতা হেনরি টমাস বাকলের (১৮২১—১৮৬২) নাম করা যাইতে পারে। তাঁহার বাস্থ্য বাল্যকাল হইতেই ভাল ছিল না এবং চিকিৎসকদের পরামশে তাঁহার পিতামাতা ‘তাঁহার মস্তিক ভারাক্লান্ত করিতে চেষ্টা করেন নাই। আট বৎসর বয়সেও তাঁহার অক্ষর পরিচয় হয় নাই এবং আঠারো বৎসর বয়স পৰ্যন্ত তিনি সেক্সপীয়রা, পিলগ্রিমস প্রোগ্রেস এবং আরেবিয়ান নাইটস ছাড়া বিশেষ কিছয় পড়েন নাই। তাঁহাকে বিদ্যালয়ে পাঠানো হয়, কিন্তু সেখান হইতে তাঁহাকে ছাড়াইয়া আনা হয়। সতের বৎসর বয়সে বাকলের স্বাস্থ্য কিছ ভাল হয়। ১৮৫০ খৃস্টাব্দে তিনি ১৯টি ভাষা বেশ সহজে পড়িতে পারিতেন। তাঁহার স্বল্পায় জীবনে অতিরিক্ত পরিশ্রমের ভয় সবাদা তাঁহার মনে ছিল, এবং একাদিক্ৰমে তিনি বেশী পড়াশনা কখনই করিতেন না। তৎসত্বেও নিয়মিত অভ্যাসের ফলে তিনি প্রায় বাইশ হাজার বই পড়িয়াছিলেন। “সভ্যতার ইতিহাস" পড়িলে তাঁহার পরিণত চিন্তা এবং অগাধ পাণ্ডিত্যের পরিচয় প্রত্যেক পঠায় পাওয়া যায়। প্রসিদ্ধ মহিলা ঔপন্যাসিক জজ ইলিয়ট ৫ বৎসর হইতে ১৬ বৎসর বয়স পর্যন্ত স্কুলে শিক্ষা লাভ করেন, কলেজী শিক্ষা তাঁহার হয় নাই। কিন্তু তিনি বহ গ্রন্থ অধ্যয়ন করিয়াছিলেন এবং জামান ও ইটালিয়ান ভাষা জানিতেন। মহিলা কবি এলিজাবেথ ব্যারেট ব্রাউনিং (১৮০৬—৬১) নিজের চেস্টাতেই শিক্ষালাভ করেন। বিদ্যাশিক্ষার ক্ষমতা তাঁহার অসাধারণ ছিল। আট বৎসর বয়সের সময় তাহার একজন গহশিক্ষক ছিল। সেই সময় তিনি একহাতে হোমরের মল গ্রীক কাব্য পড়িতেন, অন্য হাতে পর্তুল লইয়া খেলা করিতেন। তাঁহার বাস্থ্য বরাবরই খারাপ ছিল। মেকলে ভারতে পাশ্চাত্য বিদ্যা প্রবতনের একজন প্রধান সহায়। তিনি এই প্রচলিত মতের প্রধান প্রচারকতা ছিলেন—“যাহারা বিদ্যালয়ের পরীক্ষায় প্রথম হয়, তাহারাই উত্তরকালে জীবনসংগ্রামে সাফল্য লাভ করে।” মেকলে বলেন—“বিশ্ববিদ্যালয়ের - এবং জনিয়র ওপটিমদের তালিকা তুলনা করিয়া আমি বলিতে চাই যে, পরবতী কলেজে ৫১৫.৫ টাকা, সরকারী তহবিল হইতে ৪২৭.২ টাকা; সংস্কৃত কলেজে ৫৫৬-৩ টাকা, সরকারী তহবিল হইতে ৫০১ টাকা; কৃষ্ণনগর কলেজে ৫৩৫-৩ টাকা, সরকারী তহবিল হইতে ৪৩৫-৬ টাকা এবং রাজসাহী কলেঞ্জে ২৮৫৩ টাকা, তন্মধ্যে সরকারী তহবিল হইতে ১৯২৬ টাকা। (বাংলার বাবিক শিক্ষাবিবরণী—১১২৭-২৮)।