পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/২২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


"এই সব কলেজে প্রায় ১৩ হাজার ছাত্র এবং ৩ হাজার ছাত্রী কলেজে থাকিবার সময় বোপাজিত অথে ব্যয় নিবাহ করে। সাধারণতঃ আন্ডার-গ্রাজয়েটরা আংশিক সময়ে কাজ করিয়া এক এক টামে ৩০ পাউন্ড হইতে ৭০ পাউণ্ড এবং গ্রীষ্মাবকাশে ৪০ পাউণ্ড হইতে ৫০ পাউণ্ড পৰ্যন্ত উপাজন করে।” ট্রিবিউন পত্রিকার চীনস্থিত একজন সাংবাদিকের কথাপ্রসঙ্গে ক্যারপে নিলসেন বলিয়াছেন—“অন্য অনেক আমেরিকান সাংবাদিকের ন্যায় তিনি জীবনে নানা কাজ করিয়াছেন, তার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাধি লইয়া সংবাদপত্রসেবী হইয়াছেন। এক সময়ে তিনি রেলওয়ে লাইনে শ্রমিকের কাজও করিয়া ছিলেন।”—The Dragon Awakes p. 77. o ইহার বারা বঝো যায় না যে, আমেরিকার প্রত্যেক কলেজের ছাত্র বাবলম্বী এবং পরিশ্রমী। বহল বৎসর পাবে, এমাসন সহরের পত্তেলিকাবৎ অকমণ্য ছাত্র (ইহারা অনেকটা আমাদেরই সহরবাসী ছাত্রদের মত) এবং দঢ়-প্রকৃতি বাবলম্বী যুবকের তুলনা "আমাদের যবেকরা যদি প্রথম চেষ্টাতেই ব্যথ হয়, তবে তাহারা ভানহাদয় হইয়া পড়ে। যদি কোন নবীন ব্যবসায়ী সাফল্য লাভ করিতে না পারে, লোকে বলে যে সে একেবারে ধনংসের মখে গিয়াছে। যদি কোন বৃদ্ধিমান ছাত্র কলেজ হইতে বাহির হইয়া এক বৎসরের মধ্যে বোস্টন বা নিউইয়কে কোন আফিসে কাজ না পায় তবে সে এবং তাহার বন্ধগণ মনে করে তাহার নিরাশ হইবার ও সারাজীবন বিলাপ করিবার যথেষ্ট কারণ আছে। পক্ষান্তরে, নিউ হাম্পাশায়ার বা ভারমণ্ট হইতে আগত দৃঢ় প্রকৃতি যবেক একে একে সমস্ত কাজে হস্ত দেয়, সে ফামে শ্রমিকের কাজ করে, ফেরী করে, স্কুলে পড়ায়, বস্তৃতা করে, সংবাদপত্র সম্পাদন করে, কংগ্রেসে যায়, নাগরিকের অধিকার ক্ৰয় করে। বৎসরের পর বৎসর এইরুপ বিভিন্ন কাজ করিয়াও তাহার চিত্তের পৈথষ নষ্ট হয় না। সে একাই, সহরবাসী এক শত অকমাণ্য পত্তেলিকার সমকক্ষ, সে জীবনের পথে বক ফলাইয়া চলে, কোন উচ্চতর বত্তি শিক্ষা করে নাই বলিয়া লজা বোধ করে না—কেননা সে কখনও তাহার জীবনের গতি বন্ধ করে নাই, সবাদাই সে জীবন্ত। তাহার জীবনে মাত্র একবার সষোগ আসে না, শত শত সংযোগ তাহার সম্মখে বতমান।” মিস্টার সি, জে, স্মিথ গত ৪০ বৎসর ধরিয়া অনেক বড় বড় কাজ করিয়াছেন। তিনি সম্প্রতি (১৯৩১) ৬৯ বৎসর বয়সে ক্যানাডিয়ান ন্যাশনাল রেলওয়ের ভাইস প্রেসিডেন্টের ईस्ट अस्य व्य स्थान তাঁহার সারগভ অভিমত পর পাঠায় উদ্ধত | “কানাডাতে গ্রীষ্মের ছটর সময় বালকদিগকে, ভবিষ্যতে ষে বত্তি সে অবলবন , তাহা হাতে কলমে শিক্ষা করিবার সুযোগ দেওয়া হয়। আমার মতে এই রীতি ভাল। ইহার ফলে সে সব দিক হইতে বিষয়টি শিখিতে পারে। e “আমি যখন যবেক ছিলাম, তখন গলফ বা বিলিয়াড’ খেলা ছিল না। এবং ৩০ বৎসর বয়সে আমি যখন সভ্যতার সংস্পশে আসিলাম, তখন আমি পল বা গলফ খেলা জানিতাম না।” - যাঁহারা সামান্য অকথা হইতে স্বীয় চেষ্টায় জীবনের নানা বিভাগে শ্রেষ্ঠ পথান তুষিকার করিয়াছেন, এরপ বহন ব্যক্তির দন্টাত ইতিপূবে আমি দিয়াছি। চারজন প্রসিদ্ধ জননায়কের প্রথম জীবনের সংক্ষিপত বিবরণ দিয়া আমি এই অধ্যায় শেষ করিব।