পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/২৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিক্ষালাভ করিয়াছিলেন। রাসায়নিক ইঞ্জিনিয়ারিংএর সংস্পশে থাকার দরণে, আমাদের ব্যবসায়ের বিস্তারের সঙ্গে সঙ্গে তাঁহার জ্ঞান ও অভিজ্ঞতাও বন্ধি পাইয়াছিল। তাঁহার নিজের বিভাগে তিনি বিশেষরপে দক্ষতা লাভ করেন। আমরা বিনা বিধায় তাঁহার হতে নতন অ্যাসিড ল্যাণ্ট তৈরীর ভার ন্যস্ত করিলাম। যন্ত্রনিমাতা ষে পল্যান ও বিস্তৃত বিবরণ দিয়াছিলেন, তিনি বিশেষ যত্ন সহকারে তাহার তাৎপষ" বুঝিয়া লইয়াছিলেন। এই কাযে* কৌশল ও দক্ষতা প্রদর্শন করিয়া তিনি আমাদের সকলেরই প্রশংসা অজ’ন করেন। যন্ত্রনিমাতা ষে ল্যান দাখিল করেন, তাহার মধ্যে কয়েকটি ক্রটিও তিনি-প্রদর্শন করেন এবং সেগুলি যন্ত্রনিমাতা নিজেও মানিয়া লন। ভারতবষে বোধহয় ইহাই অন্যতম বড় অ্যাসিড তৈরীর কল। টেকনোলজিক্যাল ইনস্টিটিউটে ছাত্রদের সালফিউরিক অ্যাসিড প্রস্তুত প্রণালী শিক্ষা দিবার জন্য কলের একটি ক্ষুদ্র নমনা দেখান হয়। এইভাবে প্রদর্শনীতে তাজমহলের নমনাও দেখান হয়। সেই তাজমহলের নমনা দেখিয়া যেমন কেহ তাজমহল তৈরী করিতে পারে না, তেমনি ক্ষুদ্র একটি নমনা দেখিয়া অ্যাসিড তৈরীর কলও কেহ বসাইতে পারে না। (৫) ব্যবসায়ে কলেজের গ্রাজয়েট তবে কি শিল্প ব্যবসায়ে কলেজে শিক্ষিত ঘবেকের পথান নাই ? স্থান নিশ্চয়ই আছে, তবে তাহা বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে। তত্তজন্য তাহাকে ছাত্রজীবনের অদ্ভূত ধারণাসমহে ত্যাগ করিতে হইবে এবং নতন করিয়া শিক্ষানবীশ হইয়া গোড়া হইতে কাজ আরম্ভ করিতে হইবে। এইরুপ অবস্থায় সে তাহার যোগ্যতা সপ্রমাণ করিতে পারে। কানেগী বলেন,— “পবে আমাদের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে যুবকেরা অলই বয়সেই গ্রাজয়েট হইত। আমরা এই নিয়মের পরিবতন করিয়াছি। এখন যুবকেরা বেশী বয়সে গ্রাজয়েট হইয়া জীবন সংগ্রামে প্রবেশ করে—অবশ্য তাহারা পবেকার গ্রাজয়েটদের চেয়ে অনেক বেশী বিষয় শিখে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষিত যুবকেরা যদি তাহদের মুখ্য কমক্ষেত্রে সমস্ত শক্তি ও সময় দিয়া জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা লাভ করিতে চেষ্টা না করে, তবে তাহারা যে সব যবেক, অপেক্ষা বেশী অসুবিধা ভোগ করবে, এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই। “অধিক বয়স্ক গ্রাজয়েটরা উন্নতিশীল ব্যবসায়ে আর এক প্রকারের অসুবিধায় পতিত হয়। ঐ ব্যবসায়ে চাকরীর ব্যবস্থা সশঙ্খলিত, যোগ্যতা অনুসারে প্রোমোশান দেওয়া হয়। সতরাং সেখানে কাজ নিতে হইলে, সবনিম্ন স্তরে প্রবেশ করিতে হয়। তাহাকে গোড়া হইতেই কাজ আরম্ভ করিতে হয় এবং এই নিয়ম তাহার নিজের পক্ষে ও অন্য সকলের •TC+şğ €Tə" 1—The Empire of Business, pp. 206-8. "মেধাবী গ্রাজয়েট মেধাবী অ-গ্রাজয়েটের চেয়ে নিশ্চয়ই যোগ্যতায় শ্রেষ্ঠ। সে বেশী শিক্ষা পাইয়াছে এবং অন্য সমস্ত গণ সমান হইলে, শিক্ষা বারা নিশ্চয়ই যোগ্যতা বন্ধি হইবে; দুইজন লোকের সাধারণ যোগ্যতা, কমশক্তি, আশা-আকাঙ্ক্ষা যদি একই প্রকারের হয়, তবে তাহাদের মধ্যে যে ব্যক্তি অধিকতর উদার ও উচ্চাঙ্গের শিক্ষা লাভ করিয়াছে, সে নিশ্চয়ই কমক্ষেত্রে বেশী সাবধার অধিকারী হইবে।” (The Empire of Business). পরলোকগত লড’ মেলচেটের (আলফ্রেড মণ্ড) জীবনে ইহার সন্দের দন্টান্ত দেখা গিয়াছে। লর্ড মেলচেট একজন কৃতী ব্যবসায়ী ছিলেন। তিনি দুইটি ব্রিটিশ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা লাভ করেন, ব্যারিস্টারও হইয়াছিলেন। তাঁহার পিতা লাডুইগ মণ্ড একটি সবেহং অ্যালকালি কারখানার মালিক ছিলেন। লাডুইগ মণ্ডও জামানীর হিডেলবাগ বিশ্ব