পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/২৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বোট তৈরী করিতে বা মেরামত করিতে দেন (জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের লিখিত আদেশ ব্যতীত), তবে তাহা গবৰ্ণমেণ্ট বাজেয়াপ্ত করিতে পারিবেন। “যদি কোন সত্রধর, কমকার বা অন্য কোন প্রকার শিলপী এইরুপ বোট নিমাণ বা মেরামত কাষে নিযন্তে থাকে (জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের আদেশ ব্যতীত), তবে তাহাকে একমাস శా శా శా శా 5 శాం . శా శా ఆ శా | “সপরিষৎ গবৰ্ণর জেনারেলের আদেশ অনুসারে।” এই সরকারী বিজ্ঞপ্তির অর্থ সপেস্ট। বশংবদ, জনৈক পাঠক।” এইরুপ লোমহর্ষণ আদেশ বিশ্বাস করিতে প্রবত্তি হয় না, কিন্তু ইহা ঐতিহাসিক সত্য। কোন সভ্য দেশের গবর্ণমেণ্টের ইতিহাসে এরপ নিষ্ঠর আদেশের তুলনা নাই। ইহার অর্থ সপেস্ট। “যতদিন ব্রিটিশ শাসন ও ব্রিটিশ বণিকদের মধ্যে অসাধ্য সবাথের বন্ধন ছিন্ন না হইবে, যতদিন গবৰ্ণমেণ্টের নীতি পরিবতিত না হইবে এবং ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষের ইঙ্গিতে তাঁহারা ভারতের অনিষ্টসাধন হইতে বিরত না হইবেন, ততদিন ভারতীয় বাণিজ্যপোত পুনগঠনের কোন আশা নাই।”—আবদলে বারি চৌধুরী। অবৈধ বিদেশী প্রতিযোগিতা এবং বিদেশী শাসকদের সহানুভূতি-শন্য ব্যবহার ব্যতীত আমাদের সবদেশী শিল্পের বিফলতার আর একটি কারণ, নিজেদের মধ্যেই অনিষ্টকর প্রতিযোগিতা। আমি নিজের অভিজ্ঞতায় দেখিয়াছি যে, যখনই কোন স্বদেশী শিল্প প্রবতিত হয় এবং নানা বাধা বিঘের সঙ্গে সংগ্রাম করিয়া বাঁচতে চেষ্টা করে, তখনই আমাদের দেশের লোকেরা উহার অনুকরণ করিয়া দায়িত্বজ্ঞানহীনভাবে রাতারাতি ঐ শ্রেণীর বহন ব্যবসা ফাঁদিয়া বসে। ফলে পরপর জিনিষের দর কমাইয়া পাল্লা দিতে থাকে। দন্টান্তস্বরুপ বলা যায় যে, বঙ্গীয় টীম ন্যাভিগেশান কোম্পানীকে বহন দেশীয় মোটর লঞ্চ এবং ষ্টীমারের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করিতে হইয়াছে। ঐ সব মোটর লঞ্চ ও স্টীমার অন্য অনেক নদীতে ব্যবসা চালাইতে পারিত এবং তাহাতে লাভও হইত; কিন্তু তাহা তাহারা করে নাই। ফলে ঐ সব ব্যবসা ফেল পড়িয়া গিয়াছে এবং আমাদের কোম্পানীরও বহু লোকসান করিয়াছে। বাঙালীর প্রতি বিধাতার যেন চির অভিশাপ আছে, উপযুক্ত কমশক্তি, বৃদ্ধি ও প্রেরণার অভাবে, তাহারা পরাতন ছাড়িয়া নতন কোন পথ অবলম্বন করিতে পারে না, এবং তাহার ফলে অনেক ক্ষেত্রে বাঙালীই বাংলার প্রধান শহর হইয়া দাঁড়ায়।