পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/৩২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষড়বিংশ পরিচ্ছেদ কামধেনু বংগদেশ রাজনৈতিক পরাধীনতার জন্য বাংলার ধন শোষণ "প্রথম হইতেই বাংলা ভারতের কামধেন বরপ ছিল এবং অন্যান্য সকল প্রদেশ বাংলা হইতেই অৰ্থ শোষণ করিত।”—উইলিয়ম হাণ্টার (১) বাংলা সকলের মহাজন ইহা লক্ষ্য করিবার বিষয় যে, মোগল সম্রাটদের ঐশ্বষের যুগেও বাংলা দেশ তাহার নিজের শাসন ব্যয় যোগাইতে পারিত না। বাংলার সামরিক ব্যয় অন্যান্য সবো হইতে সংগ্রহ করিতে হইত। আওরঙজেব রাজস্ব সংক্রান্ত কাযে মশিদ কুলি খাঁর যোগ্যতা বঝিতে পারিয়া তাঁহাকে বাংলাদেশের দেওয়ান নিযুক্ত করিয়া পাঠাইয়াছিলেন। মশিদকুলি খাঁর সবেন্দোবস্তের ফলে শীঘ্রই বাংলার রাজস্ব এক কোটী টাকায় দাঁড়াইল। দাক্ষিণাত্যে সামরিক অভিযান করিবার নিমিত্ত আওরঙজেবের তখন অথের বিশেষ প্রয়োজন হইয়াছিল, এবং মশিদ কুলি খাঁ এই অর্থ যোগাইয়া সম্রাটের প্রিয়পাত্র হইয়া উঠিলেন। বাংলার নামমাত্র সমবেদার সালতান আজিম ওসান দিল্লী যাইবার সময়ে পথিমধ্যে সম্রাট আওরঙজেবের মৃত্যুসংবাদ শুনিলেন (১৭০৭)। বাংলা হইতে সংগহীত রাজস্ব প্রায় এক কোটী টাকা তাঁহার হস্তগত হইল। খাব সম্ভব এই টাকা দিল্লীর সম্রাটকে দেয় বাংলার বাষিক প্লাজস্ব। (১) ম্যান্ডেভিল ১৭৫০ খঃ লিখেন যে, সম্রাটের রাজস্ব দিবার জন্য বাংলার সমস্ত রৌপ্য শোষণ করিতে হইত। ইহা দিল্লীতে যাইত, কিন্তু সেখান হইতে আর ফেরত আসিত না! সতরাং এই শোষণের পর মুর্শিদাবাদের ধনভাণ্ডারে কিছই থাকিত না এবং বাংলাদেশে ব্যবসা-বাণিজ্য চালান বা বাজার হাট করাই কঠিন হইত। পরবতী জাহাজে বিদেশ হইতে রৌপ্যের আমদানী না হওয়া পর্যন্ত এই অবস্থা চলিত। (২) (১) ঐতিহাসিক স্টয়ার্টের মতে বাংলার বার্ষিক রাজবের পরিমাণ মশিদ কুলি খাঁর আমলে (১৭২২) ছিল ১ কোটী ৩০ লক্ষ টাকা। শাসন ব্যয় বাদ দিয়া নিট রাজস্ব এক কোটী টাকার বেশী হইত। অ্যাস্কোলির হিসাবে বাংলার রাজসেবর পরিমাণ ছিল ১,৪২,৮৮,২৮৬ টাকা। (২) ম্যান্ডেভিল কিন্তু বঝিতে পারেন নাই যে, দিল্লীতে যে টাকা যাইত, তাহা কোন না কোন 2FIG on to foil affirst off. SigE General History of the Mugul Empire নামক গ্রন্থে অবস্থাটা ঠিক ধরিতে পারিয়াছেন। তিনি বলেন—“এই বিপলে অর্থের পরিমাণ বিস্ময়কর বটে, কিন্তু মনে রাখতে হইবে যে, এই অঞ্চ মোগল রাজকোষে গেলেও, তাহা পনবার বাহির হইয়া প্রদেশ সমাহে অলপ বিস্তর যাইত। সাম্রাজ্যের অদ্ধাংশ সম্রাটের সাহায্যের উপর নিভর করিত। এতদ্ব্যতীত যে সব অসংখ্য কৃষক সম্রাটের জন্য পরিশ্রম করিত, তাহারা সমাটের অর্থেই জীবিকা নিবাহ করত; সহরের যে সব শিল্পী সম্রাটের জন্য কাজ করিত, তাহারা রাজকোষ হইতেই পারিশ্রমিক পাইত।” “বৎসরে কয়েক লক্ষ টাকা লণ্ডনে বিলাতের জন্য ব্যয় হওয়া এবং মশিদাবাদে বিলাসের জন্য SR RSF-a staz MW forsą zrew awx – –Torrens: Empire in Asia.