পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/৩৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সপ্তবিংশ পরিচ্ছেদ বাংলা ভারতের কামথেন (পবোনবেত্তি) বাঙালীদের অক্ষমতা এবং অবাঙালী কতৃক বাংলার আর্থিক বিজয় (s) बाध'ऊाब्र काब्रन-अकश्रद्धा ব্যবসা বাণিজ্যে সাফল্য লাভ করিতে হইলে, যে দুইটি প্রধান গণের প্রয়োজন, তাহা বাঙালীর চরিত্রে নাই; সে দইটি গণ ব্যবসায়বধি এবং নতন কম প্রচেষ্টায় অন্যরাগ। বাঙালী ভাবক ও আদর্শবাদী, সেই তুলনায় বাস্তববাদী নয়--এই কারণে ব্যবসায় ক্ষেত্রে সে পশ্চাৎপদ। ১৭৫৩ সালে ঢাকার বসন্ত্রব্যবসায়ের অবসথা সম্বন্ধে টেলর যে বিবরণ দিয়াছেন, তাহা হইতে এ সম্বন্ধে অনেক রহস্য জানিতে পারা যায়। আলিবদীর শাসনকালে বাঙালী ছাড়া আর যে সব জাতির লোক বাংলাদেশে বাণিজ্য করিত, এই বিবরণ হইতে তাহাদের সবন্ধে অনেক তথ্য সংগহীত হইতে পারে। যথা,--(১) তুরাণীগণ (অক্সাস নদীর পরপারে তুরাণ দেশ হইতে আগত বণিকগণ); (২) পাঠানগণ—ইহারা প্রধানতঃ উত্তর ভারতে বাণিজ্য করিত; (৩) আমাণীগণ— ইহারা বসোরা, মোচা এবং জেস্তায় বাণিজ্য করিত; (৪) মোগলগণ—ইহারা অংশতঃ ভারতে এবং অংশতঃ বসোরা, মোচা ও জেন্ডার বাণিজ্য করিত; (৫) হিন্দগণ—ভারতে বাণিজ্য করিত; (৬) ইংরাজ কোম্পানী; (৭) ফরাসী কোম্পানী; (৮) ওলন্দাজ কোম্পানী। (১) বলা বাহুল্য, ইয়োরোপীয় কোম্পানী গলি ইয়োরোপে এবং পথিবীর অন্যান্য স্থানে পণ্য রপ্তানী করিত। আমাপীগণ সমুদ্র বাণিজ্যে প্রধান অংশ গ্রহণ করিত। সিরাজদ্দৌলার পতনের পর মীর জাফরের সঙ্গে ইংরাজদের যে সন্ধি হয়, তাহাতে একটা সত ছিল কলিকাতার অনিষ্ট হওয়াতে যাহাদের ক্ষতি হইয়াছে’ তাহাদের ক্ষতিপরণের ব্যবস্থা করিতে হইবে। এই সতে ক্ষতিগ্রস্ত ইংরাজদের ৫০ লক্ষ টাকা এবং আমীণীদের জন্য ৭ লক্ষ টাকা দেওয়া হইয়াছিল। (২) ১৬শ শতাব্দীতে সমদ্র বাণিজ্যের পরিমাণ সামান্য ছিল না। কেননা তৎসাময়িক বক্তান্তে লিখিত আছে যে, ১৫৭৭ খস্টাব্দে মালদহের সেখ ভিক তিন হাজার মালদহী কাপড় পারস্য উপসাগর দিয়া রাশিয়াতে ႏိုင္သူႏွစ္တ হেস্টিংসের সময়ে বাংলার বহিবাণিজ্য প্রায় সমস্ত ইয়োরোপীয়দের হাতে l (○) (b) ! C. Sinha—Economic Annals. (8) Stewart's History of Bengal, (Suso)—off:futo “আমাপীরা অতি প্রাচীন কাল হইতেই ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য করিত। তাহারা তাহাদের দরবতী তুষারাচ্ছন্ন পাবত্য দেশ হইতে বাণিজ্যের লোভেই ভারতে আসিয়াছিল। ভারত হইতে তাহারা মসলা, মসলিন এবং মাল্যবান রত্নাদি লইয়া ইয়োরোপে বাণিজ্য করিত। ইয়োরোপীয় বণিক, ভ্রমণকারী এবং ভাগ্যান্বেষীদের আগমনের পাব হইতেই আমাশীরা ভারতের সঙ্গে সম্বন্ধ স্থাপন করিয়াছিল।”— Indian Historical Records Commission, Vol. iii, p. 198. (৩) সমদ্র বাণিজ্যের দুইটি বিভাগ ব্যতীত অন্য সমস্ত বিভাগে ইয়োরোপীয়েরা বাঙালীদিগকে স্থানচ্যুত করিয়াছিল। এই দুইটি বিভাগ মালম্বীপ ও আসাম। ইহার কারণ, মালম্বীপের