পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/৩৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উনত্রিংশ পরিচ্ছেদ পরিশিষ্ট (১) ऋष जब भानषट्क श्राभि द्वमधिग्नाइ যদিও রাজনীতিক হইবার দরাকাঙ্ক্ষা আমার কোন কালেই ছিল না, বক্তা হিসাবে প্রসিদ্ধ হইবার ইচ্ছাও আমার নাই—তথাপি খ্যাতনামা রাজনৈতিক বক্তাদের বস্তৃতা শনিবার সযোগ আমি কখনও ত্যাগ করি নাই। ইলবার্ট বিল আন্দোলন যখন প্রবল ভাবে চলিতেছিল, তখন (১৮৮৩) উইলিসের কক্ষে লড রিপনকে সমর্থন করিবার জন্য লিবারেল রাজনীতিকদের এক সভা হয়, আমি ঐ সভাতে যোগ দেই। জন ব্রাইট সভাপতির আসন গ্রহণ করেন—বস্তৃাদের মধ্যে ডবলিউ. ই. ফরস্টার, স্যার জজ কাবেল এবং লালমোহন ঘোষ ছিলেন। আমাদের স্বদেশবাসী লালমোহনের বস্তৃতা চমৎকার হইয়াছিল, যদিও তাঁহার পবে ইংলন্ডের তদানীন্তন শ্রেষ্ঠ বক্তা রাইট বস্তৃতা করেন। ল্যাডস্টোন, জোসেফ চেম্বারলেন, মাইকেল ডেভিট, জন ডিলন, উইলফ্রিড লসন, লর্ড রোজবেরী, এবং এ. জে. ব্যালফরের বস্তৃতা আমি শনিয়াছি। আমি এডিনবাগের একটি প্রসিদ্ধ জনসভাতেও উপস্থিত ছিলাম, ঐ সভায় প্রসিদ্ধ আফ্রিকা ভ্রমণকারী এইচ. এম. স্ট্যানলি প্রধান বক্তা ছিলেন। ১৯২৬ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিথিরপে আমি যখন ডাবলিনে যাই, তখন অতিথিদের সম্ববন্ধনার জন্য একটি উদ্যান সম্মিলনী হয়। আমি সেখানে আইরিশ ফ্রি ষ্টেটের গবর্ণর জেনারেল মাননীয় টি. এম. হিলির সাক্ষাং লাভ করি। তিনি তখন বয়সে প্রবীণ এবং তাঁহার যৌবনের তেজস্বিতা কিছু শান্ত হইয়াছে। তাঁহার সহাস্য বদন এবং মধর ব্যবহার দেখিয়া মনে হয় নাই যে, তিনিই পর্বকালের সেই বিখ্যাত "টিম" হিলি; গত ১৮৮০ সালের কোঠায় ইনিই পালামেণ্টে চরম পন্থী, নিয়ত বাধাপ্রদানকারী পানেলের দলভুক্ত সদস্য ছিলেন। ভারতীয় রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে লালমোহন ঘোষের বামিতা উচ্চাঙ্গের ছিল। সরেন্দ্রনাথের যে সব মদ্রাদোষ ছিল, লালমোহনের তাহা ছিল না। কিন্তু সরেন্দ্রনাথ নব্য বগের যবেকদের আদশ ছিলেন এবং তাঁহার আবেগময়ী ওঁর্জস্বিনী বস্তৃতা যবেকদের চিত্তের উপর অসামান্য প্রভাব বিস্তার করিত। তাঁহার অদ্ভুত স্মরণশক্তিও ছিল। ভারতীয় জাতীয় মহাসভার পনা অধিবেশনের প্রেসিডেন্টরপে তিনি অপব বস্তৃতা শক্তির পরিচয় প্রদান করেন। তিনি একটি বারও না থামিয়া তিন ঘণ্টা কাল অনগ'ল বস্তৃতা করেন। ཧྥུ་ ཅན་ཚ་ཤང་། ཨ་མ་ལྟ་ ཅིང་། ཐ༠ “༢༠ ta ཨཐ༣ ཨ་ཕ་ལ། ཁབ། ཐ་མ་ | গোখেল বামী ছিলেন না, কিন্তু তাঁহার সাবলীল বস্তৃতা বহন তথ্যে পণ থাকিত। তিনি সংখ্যাসংগ্রহে নিপণ ছিলেন, বস্তৃতায় অনাবশ্যক উচ্ছাস প্রকাশ করিতেন না। তাঁহার মনে আলোচ্য বিষয় সম্বন্ধে কোন সন্দেহ বা সংশয় থাকিত না, কেননা তথ্য সম্বন্ধে তিনি সনিশ্চিত ছিলেন। তিনি বাক্য সংযমের মাল্য বঝিতেন এবং বেকনের প্রবন্ধের মত সর্বদাই গরোপণ সংক্ষিপ্ত বস্তৃতা করিতেন। সরেন্দ্রনাথের বস্তৃতা হাদয়ের উপর আর গোখলের বস্তৃতা মস্তিকের উপর প্রভাব বিস্তার করিত। ভারতের জাতীয়তাবাদের •