পাতা:আত্মচরিত (শিবনাথ শাস্ত্রী).pdf/৪৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উনবিংশ পরিচ্ছেদ VR CF বালকাটীর হাতে বাড়ীতে বাড়ীতে বাক্স পাঠাইয়াছিলাম, তাহাকে DBBB DDBDBBS DBDBBD DDD DBBD DBDBD DD BB DB কেবল বাক্সটী লইয়া বাড়ীতে বাড়ীতে গিয়া দাড়াইবে, স্বতঃপ্রবৃত্ত হইয়া DD DD BB DBBDBS sDDB DBDD DDD DDD uBDD পাওয়া গিয়াছিল। আর একটী স্মরণীয় ঘটনা, একবার আমি সাধনাশ্রমের কাৰ্য্যভার আশ্রমের*একজন পরিচারকের প্রতি দিয়া ধৰ্ম্মপ্রচারার্থ লাহোরে গিয়াছিলাম। সেখানে সম্বাদ পাইলাম আশ্রমে মহা অর্থকষ্ট উপস্থিত। দিনে দুই তিন আনা মাত্র বাজার হইতেছে। যে রবিবার প্রাতে এই সম্বাদ পাইলাম, সেইদিন তথাকার এক ব্ৰাহ্ম বন্ধুর ভবনে আহারের নিমন্ত্রণ ছিল। আহার করিতে যাইবার সময় সঙ্গের একটী ব্ৰাহ্ম বন্ধুকে বলিলাম, “আজ আমার নিমন্ত্রণ খেতে উৎসাহ হচ্চে না। কলিকাতার আশ্রমে যারা আছেন, তঁদের বাজারের পয়সা নাই, আর আমি এখানে BDD LLDB BuDDSqS BBD BDBB BBS S D DDD DB DDD দিয়েছি না গেলে নয়।” এই বলিয়া কোন প্রকারে গিয়া আহার করিয়া আসিলাম। সায়ংকালে লাহোর মন্দিরে উপাসনার। কাৰ্য্য আমাকে করিতে হইল। উপাসনান্তে আমি বেদী হইতে নামিয়াছি। এমন সময় একজন আসিয়া আমাকে বলিলেন, যে, একটী পাঞ্জাবী বড়ঘরের মেয়ে আমার সঙ্গে সাক্ষাৎ করিবার জন্য মন্দিরের পশ্চাতের ঘরে অপেক্ষা করিতেছেন। আমি গিয়া দেখি তিনি একজন বড়লোকের পুত্রবধু। তঁহার পতি কিছুদিন পূর্ব হইতে ব্ৰাহ্মসমাজের দিকে আকৃষ্ট হইয়াছেন। তিনি আমাকে দেখিবামাত্র স্বীয় আসন হইতে উঠিয়া গলবন্ত্রে আমার চরণে প্ৰণত হইলেন এবং আমার পায়ে একশত টাকার নোট রাখিয়া বলিলেন, আপনার স্থাপিত আশ্রমের সাহায্যার্থে দান। তৎপরদিনই সেই টাকা কাৰ্য্যাধ্যক্ষের নিকট প্রেরণা করিলাম।