পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


あ8v শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত [ ৫ম পরিঃ কাহারও ইচ্ছা নয় যে, তোমরা এই অভিনয় কর ; ছেলেরা খারাপ হইয়া যাইতেছে। তুমি ইহার ভিতর কিরূপে গেলে ?” আমি । আজ্ঞে, আমি আগে ইহার ভিতর ছিলাম না, পরে গিয়াছি। এবার বেণীসংহার বি এ কোসেৰ্প আছে ; অভিনয় করিয়া দেখাইলে আমাদেরও উপকার, অন্য ছেলেদেরও উপকার। প্রিন্সিপাল। তাহা হইলেও কলেজের ছেলে খারাপ করা কি ভাল ? আমি । যা কিছু দেখিতেছেন দুদিনের জন্য ; তার পর সব থামিয়া যাইবে । এক জন অধ্যাপক । না না, তাহা হইবে না । ও সব বন্ধ করিয়া দাও । আমি। মহাশয়দের অনভিমতে আমার কিছু করিবার ইচ্ছা নয়। আপনারা নিষেধ করিলে এখনি ও সব থামিয়া যাওয়া উচিত। তবে মহাশয়দিগকে একটা কথা ভাবিতে বলি। অভিনয়ের আর তিন চার দিন আছে ; হুগলী কৃষ্ণনগর প্রভৃতি কলেজের ছেলেদের নিমন্ত্রণ করা হইয়াছে ; এখন না করিলে আমাদের বড় লজ্জার কথা। অন্ততঃ এক বার অভিনয়ের জন্য অনুমতি দিন । প্রিন্সিপাল। আচ্ছা তুমি যাও । আমরা বিবেচনা করি, তার পর তোমায় আবার ডাকিব । আমি ত ‘যে আজ্ঞা' বলিয়া প্ৰস্থান করিলাম। বন্ধু দলে আসিয়া সংবাদ দিলে মহা উত্তেজনা দৃষ্ট হইল। তাহাদিগকে থামাইতে অনেক সময় গেল। অবশেষে অধ্যাপকগণ আবার ডাকিলেন। ডাকিয়া বলিলেন, “তোমরা এক বার মাত্র অভিনয় করিতে পার। তবে তোমাকে তিনটি কাজ করিতে হইবে। প্রথম, নিম্ন শ্রেণীর যে সকল বালককে অভিনয়ে লইয়াছ, তাহদের অভিভাবকদের অনুমতি আনিতে হইবে। দ্বিতীয়, অভিনয় স্থলে গায়ক ও বাদকদের সঙ্গে কলেজের ছেলেদিগকে