পাতা:আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তর্পন - জলধর সেন.pdf/১৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


bpR আত্মজীবনী ও স্থতি-তৰ্পণ BB BD DuD BDBBDBDYiDDB DDD DDSBBD SzBDBBDD S BDB कठूg\छ प्रजा7छक्ष ! ১৩৭৬ সালের প্রথমেই গ্ৰে ষ্টীটে ‘বসুমতী’ আফিস বসিয়ে আমাদের প্রথম উল্লেখযোগ্য কাৰ্য হােলো ‘বসুমতী’র পুরাতন ও নূতন গ্ৰাহকদিগের মধ্যে উপহার বিতরণ করা । ‘বসুমতী’ এই প্ৰথম উপহার বিতরণের কাৰ্যে অগ্রসর হলেন। আমরা সেবার পূজার প্রায় ২০ দিন পূর্ব হতে মাইকেলের গ্রন্থাবলী উপহার দিবার ব্যবস্থা করলাম। নামমাত্র মূল্য নিয়ে দুই হাতে মাইকেলের গ্রন্থাবলী বিতরণ আরম্ভ করা গেল। আমবা মনেও করিনি যে, আমাদের এই উপহার বিতরণ এমন সফলতা লাভ করবে। প্রতিদিন গড়ে ৪৫ শত नूउन গ্ৰাহক আসতে লাগলো। সারাদিনই গ্ৰাহককের সমাগম, বিশেষত: অপরাহ্ন পাঁচটার পর থেকে রাত দশটা পৰ্যন্ত অবিশ্ৰান্ত নূতন গ্ৰাহক আসতে লাগলেন। এত সাফল্য আমরা মোটেই আশা করি নি । পূজা কেটে গেল। আমরা অবকাশান্তে এসে কাযে যোগদান করলাম । সেই সময়েই অতর্কিতভাবে আমাদের নিকপন্দ্রব শান্তিব্য ব্যাঘাত উপস্থিত হোলো, ‘বসুমতী’র স্বত্বাধিকারী উপেন্দ্রবাবুর সহিত সম্পাদক পাঁচকড়িবাবুৰ সংঘর্ষ উপস্থিত হোলো। উপেন্দ্রবাবুর স্বভাব এক দিকে যেমন শান্ত, শিষ্ট ও বিনয়পূর্ণ ছিল, অপর দিকে কর্তব্য সম্পাদনে দৃঢ়তাও অপরিসীম ছিল। পাঁচকড়িবাবুর সঙ্গে উপেন্দ্রবাবুর মনোমালিন্যের সমস্ত সংবাদই আমি জানি, কিন্তু এতকাল পরে সেই অগ্ৰীতিকর প্রসঙ্গ,লিপিবদ্ধ করা আমি অশোভন বলে মনে করি। এইমাত্র বলতে পারি—এই সংঘর্ষের ফলে পাঁচকডিবাবু ‘বসুমতী’ থেকে বিদায় পেলেন এবং তার স্থানে আমি সম্পাদক নিযুক্ত হলাম । সে সময়ে ‘বসুমতী’র সম্পাদকীয় বিভাগে পাঁচকড়িবাবু ও আমি ছিলাম। গ্রে ধীটে আসবার আগেই পূৰ্ণচন্দ্র গুপ্ত মহাশয় চলে যান। এখন পাঁচকড়িবাবুও গেলেন। অত বড় একখানা কাগজ আমি একলা কি করে চালাই । সুপ্ৰসিদ্ধ সাংবাদিক পরলোকগত পূজনীয় ক্ষেত্রমোহন সেনগুপ্ত মহাশয়ের কাছে গেলাম। তিনি ‘বসুমতী’তে চাকরি করতে সম্মত হলেন না, তবে প্ৰতি সপ্তাহে যথাযোগ্য পারিশ্রমিক নিয়ে কিছু কিছু লেখা দিতে প্ৰতিশ্রত হলেন। এইটুকু ব্যবস্থাতেই তো অত বড় একথানা কাগজ চলে না! আমার তখন মনে হােলো সুহৃদ্ধর শ্ৰীযুক্ত দীনেন্দ্ৰকুমার রায় মহাশয়ের কথা। তিনি তখন সুদূর BBDD iDDBDDBD DDBB DDB gDD S SDB SDDDDBD DBDDBD