পাতা:আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তর্পন - জলধর সেন.pdf/১৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


a আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তৰ্পণ সমৰ্পণ করলেন। তিনিও আমাকে জবাব দিলেন না, আমিও তাকে জবাব দিলাম না । যেমন বন্ধুভাবে ‘বসুমতী’তে প্ৰবেশ করেছিলাম, তেমনি বন্ধুভাবেই ‘বসুমতী’র বন্ধন ছিন্ন করলাম । কিন্তু উপেন্দ্রবাবুর স্নেহের বন্ধন তঁর জীবনান্তকাল পর্যন্ত আমি ছিন্ন করতে পারি নি। ১৩২৫ সালের ১৭ই চৈত্র ৫০ বৎসব বয়সে সুধী কর্মবীর উপেন্দ্ৰনাথ তার নিমু। গোস্বামীর লেনের বাড়ীতে যে দিন দেহত্যাগ করলেন সেই দিনই তার স্নেহপাশ ছিন্ন হোলো । আজ এতকাল পরে আমার সেই পরম বন্ধু কলিকাতায় সংবাদপত্র-ক্ষেত্রে আমাব দ্বিতীয় আশ্রয়দাতা উপেন্দ্রনাথের স্মৃতি-তপণ করে পরম তৃপ্তিলাভ করলাম । | 2 | এবােব এক সঙ্গে তিন-চারজন আমার পরম শ্ৰদ্ধেয় খ্যাতনামা মহাশয়ের স্মৃতি-তপণ করব । ধারাবাহিক হিসাবে বলতে গেলে প্ৰথমেই পণ্ডিত কালীপ্ৰসন্ন কাব্যবিশারদের নাম বলতে হয়। তার পরেই ‘হিতবাদী’ পত্রের প্ৰতিষ্ঠাতৃগণেব অন্যতম সুপ্ৰসিদ্ধ কবিরাজ দেবেন্দ্ৰনাথ ও উপেন্দ্রনাথ সেন ভ্ৰাতৃদ্বয়ের স্মৃতি-তপণ করতে হয়। ইহাদের মধ্যে কাব্যবিশারদ মহাশয়ের সঙ্গে আমার পরিচয় ও ঘনিষ্ঠত একটু বেশী দিনের । কিন্তু এ সকল কথা বলবার পূর্বেই আর একজনের নাম না করলে এই বিবরণের ধারাবাহিকত্ব রক্ষা পায় না-তিনি, আমার পরম বন্ধু ‘সন্ধ্যা’ কাগজের সম্পাদক ব্ৰহ্মবান্ধব উপাধ্যায় মহাশয় । এই সকল মহানুভব ব্যক্তির স্মৃতি-তৰ্পণ করবার পূর্বে আমার নিজের কথা ७क दलहउ श्छ। ‘বসুমতী’র সম্পাদন-ভার ত্যাগ করে উদভ্ৰান্তচিত্তে সপরিবারে দেশে চলে গেলাম, এ কথা পূর্বে বলেছি। কিন্তু দেশে গিয়ে বসে থাকব।--আর পরিবার gLttLtBDBD BDBS BDBB BBBD DB DDBO DD DJiLiDD DB BB DDD মনেও হয়নি । জোতি-জমা ছিল না, সঞ্চিত অৰ্থও কিছু ছিল না যে তাই দিয়ে সংসারযাত্রা নির্বাহ করব। পূজনীয় গুরুদাস চট্টোপাধ্যায় মহাশয় প্রতিমাসে পুস্তক বিক্রয়ের হিসাব থেকে কিছু কিছু পাঠাতেন, আর বড়দাদার পেনসনের টাকা