পাতা:আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তর্পন - জলধর সেন.pdf/৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


थांयूछौवनी ७ डि-उ०१ সম্পাদক যদি পরিশ্রম করিয়া লেখেন, তাহা হইলে ইহার উন্নতি হইতে পারে। ইহার মাসিক মূল্য পাচ আনা, বাৰ্ষিক ৩ টাকা ।” “গ্রামবাৰ্ত্তা প্ৰকাশিকা’র কণ্ঠে নিম্নলিখিত শ্লোকটি শোভা পাইত, শ্লোকটি গিরিশচন্দ্ৰ বিদ্যারিত্বের রচিত : “গুণালোকপ্ৰদা দোষ-প্ৰদোষ-ধ্বাস্ত-চন্দ্ৰিকা । রাজতে পত্রিকা নাম গ্রামবাৰ্ত্তাপ্ৰকাশিকা ।” ১২৭৬ সালের বৈশাখ মাস হইতে “গ্রামবাৰ্ত্তা প্ৰকাশিকা’র একটি পাক্ষিক সংস্করণও প্ৰকাশিত হয় । ১২৭৭ সালের বৈশাখ মাস হইতে পাক্ষিক পত্ৰ সাপ্তাহিকে পরিণত হয় । “গ্রামবাৰ্ত্তা প্ৰকাশিকা’ পরিচালনা করিয়া কাঙাল হরিনাথ ঋণগ্ৰস্ত হন। এই কারণে নয়। বৎসর কায়ক্লেশে কাগজখানি চালাইবার পর তিনি উহার প্রচার বন্ধ করিবার সঙ্কল্প করিয়াছিলেন, কিন্তু সহৃদয় বন্ধুরা চান্দা করিয়া কাগজখানি বজায় রাখেন। ১২৮০ সালের ৬ই বৈশাখ ( ১৭ এপ্রিল ১৮৭৩) তারিখে ‘অমৃত বাজার পত্রিকা-সম্পাদক লিপিয়াছিলেন :- “আমরা গত সংখ্যক গ্রামবাৰ্ত্তা পত্রিকা পাঠ করিয়া অত্যন্ত দুঃখিত হইয়াছিলাম। গ্রামবাৰ্ত্তার সম্পাদক আজি কয়েক বৎসর শারীরিক, মানসিক ও বৈষয়িক নানা কষ্ট স্বীকার পূর্বক এই পত্রিকাথানি চালান। ক্ৰমে ঋণগ্ৰস্ত হন এবং আপাততঃ তিনি ঋণভারে এরূপ ভারাক্রান্ত হইয়া পড়েন যে, কাগজখানি ঘন্ধ করার সংকল্প করেন এবং পত্রিকায় সেইরূপ প্ৰকাশ করেন। কিন্তু ১লা বৈশাখে তিনি পত্রিকা সম্বন্ধে নিজ গৃহে একটি উৎসব করিয়া থাকেন। এবার সেই উপলক্ষে তাহার আত্মীয় বন্ধু-বান্ধবের নিকট পত্রিকা রহিত করিবার প্রস্তাব করায়, তাহারা অত্যন্ত দুঃখিত হন এবং একটি চান্দা করিয়া পত্রিকাখনি আপাততঃ রাখিয়াছেন । গ্রামবাৰ্ত্তার সম্পাদক কুমারখালীতে একটি যন্ত্ৰালয় [ স্থাপন করিবার। ] উদ্যোগ করিতেছেন।” এই সংখ্যা ‘অমৃতবাজার পত্রিকা’য় প্রকাশিত একখানি “প্রেরিত পত্রে।” প্ৰকাশ : “কুমারখালি-প্রতিবাদ ।•••গতকল্য গ্রামবাৰ্ত্তা প্ৰকাশিকার সান্ধৎসরিক iBSBB BBD YYS BBDD YBDB DDB DBDDD DBE DDSDDD একজন ধনাঢ্য ব্যক্তি তাহার সমস্ত ব্যয় চালাইতে স্বীকার করায়, সকল সত্যগণে৷ সেই ভার কুলাইতে স্বীকৃত হইয়াছেন।-কেষাঞ্চিৎ কুমারখালীবাসিনাম।”