পাতা:আত্মবোধ.djvu/৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আত্মবোধ । ও শ্রুতু ঐহিক এবং পারত্রিক বিষয়সমূহে রাগ দ্বেষ সত্ত্বে কদাপি তত্ত্ব জ্ঞানাধিকার হইতে পারে না . অতএব মুলে, শান্ত ও বীতরাগী বলিয়৷ তদুভয় দোষরহিতকে নির্দেশ করিয়াছেন। শান্ত শব্দে দ্বেষশূন্য ও বীতরাণী শব্দে রাগরহিত ব্যক্তিকে বুঝায়। যদিচ গ্রন্থান্তরে শান্ত শব্দে অন্তরিন্দ্রিয় নিগ্রহশীলকে কহিয়াছেন তথাপি এস্থলে দ্বেষশূন্যকেই বিবেচনা করিতে হইবে । কারণ এতৎ শ্লোকীয় শান্ত শব্দের অন্তরিন্দ্রয় নিগ্রহশীল অর্থ হইলে তাহাতেই রাগ শুন্যতার সুতরাং প্রাপ্তি ছিল তবে পুনরায় ঝুঁতরাগী শব্দ প্রয়োগ করায় মদ্ভুক্ত অর্থই স্থির হইল - এবঞ্চ যাহাদিগের অনুকুল বিষয়ভোগে রাগ ও তৎ প্রতৃিকুলে দ্বেষ নাই তাহারা অবশ্যই মোক্ষভিলাষী। এতাবত তাদৃশ ব্যক্তির অপেক্ষণীয় এই তুাত্মৰোধনামক গ্রন্থ কথিত হইতেছে । অপিচ এতদ্রুপ আত্মবোধধিকার বিষয়ে অনেকে উক্ত করেন যে ব্রাহ্মণ সকল জাতমাত্রে ঋণত্রয়দ্বারা আবৃত হয়েন, তাহা ঋষিঋণ, দেবঋণ, ও পিতৃঋণ এইৰূপ কথিত আছে। অতএব সেই ঋণত্রয় দূরীকৃত না করিয়া মোক্ষাভিলাষী হইলে অধঃপতন হয় ইহা ভগবান মনু কহিয়াছেন যথ। “ ঋণানি ত্রীণ্যুপাকৃত্য মনোমোক্ষে নিবেশয়েৎ । অনপাকৃত্য মোক্ষন্ত সেবমানো ব্ৰজত্যধঃ” । অর্থাৎ ঋণত্রয় দূরীকরণপূর্বক মনকে মোক্ষ বিষয়ে.নিবিষ্ট করিবে তাহা না করিয়া যে ব্যক্তি মোক্ষ সেবা করে তাহার অধঃপাত হয়। এনিমিত্ত কেবল বিষয়বৈরাগ্য জাত হইলেই মোক্ষানুসন্ধান-করিবে না কিন্তু বেদাধ্যয়ন ও দেবতু যজন ও পুত্রোৎপাদন এতদ্বারা ঋণত্রয় দূর করিয়া মোক্ষ বিষয়ে যত্ন করবে। ফলতঃ তাহাদিগের এতাদৃশ্বাভিধান বহির্জাতবৈরাগ্যের প্রতি সম্ভব হয় না। কেননা বৃেদেতে