পাতা:আনন্দমঠ - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় খণ্ড—ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ Wమ সত্য। তবে তোমাদিগকে দীক্ষিত করিব। তোমরা যে সকল প্রতিজ্ঞা করিলে, তাহা ভঙ্গ করিও না। মুরারি স্বয়ং ইহার সাক্ষী। যিনি রাবণ, কংস, হিরণ্যকশিপু, জরাসন্ধ, শিশুপাল প্রভৃতি বিনাশহেতু, যিনি সৰ্ব্বাস্তধ্যামী, সৰ্ব্বজয়ী, সৰ্ব্বশক্তিমান ও সৰ্ব্বনিয়ন্ত, যিনি ইন্দ্রের বজে ও মার্জারের নখে তুল্যরূপে বাস করেন, তিনি প্রতিজ্ঞাভঙ্গকারীকে বিনষ্ট করিয়া অনস্ত নরকে প্রেরণ করিবেন। উভ। তথাস্তু । সত্য। তোমরা গাও “বন্দে মাতরম্ ।” উভয়ে সেই নিভৃত মন্দিরমধ্যে মাতৃস্তোত্র গীত করিল। ব্ৰহ্মচারী তখন তাহাদিগকে যথাবিধি দীক্ষিত করিলেন। ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ দীক্ষা সমাপনান্তে সত্যানন্দ, মহেন্দ্রকে অতি নিভৃত স্থানে লইয়া গেলেন। উভয়ে - উপবেশন করিলে সত্যানন্দ বলিতে লাগিলেন, “দেখ বৎস! তুমি যে এই মহাব্ৰত গ্রহণ করিলে, ইহাতে ভগবান আমাদের প্রতি অনুকূল বিবেচনা করি। তোমার দ্বারা মার স্বমহৎ কার্য্য অনুষ্ঠিত হইবে। তুমি যত্নে আমার আদেশ শ্রবণ কর । তোমাকে জীবানন্দ, ভবানন্দের সঙ্গে বনে বনে ফিরিয়া যুদ্ধ করিতে বলি না । তুমি পদচিহ্নে ফিরিয়া যাও । স্বধামে থাকিয়াই তোমাকে সন্ন্যাসধৰ্ম্ম পালন করিতে হইবে।” মহেন্দ্র শুনিয়া বিস্মিত ও বিমর্ষ হইলেন। কিছু বলিলেন না। ব্রহ্মচারী বলিতে লাগিলেন, “এক্ষণে আমাদিগের আশ্রয় নাই ; এমন স্থান নাই যে, প্রবল সেন আসিয়া আমাদিগকে অবরোধ করিলে আমরা খাদ্য সংগ্ৰহ করিয়া, দ্বার রুদ্ধ করিয়া দশ দিন নির্বিবয়ে থাকিব। আমাদিগের গড় নাই । তোমার অট্টালিকা আছে, তোমার গ্রাম তোমার অধিকার । আমার ইচ্ছ, সেইখানে একটি গড় প্রস্তুত করি। পরিখা প্রাচীরের দ্বারা পদচিহ্ন বেষ্টিত করিয়া মাঝে মাঝে তাহাতে ঘাটি বসাইয়া দিলে, আর বঁাধের উপর কামান বসাইয়া দিলে উত্তম গড় প্রস্তুত হইতে পারিবে। তুমি গৃহে গিয়া বাস কর, ক্রমে ক্রমে তুই হাজার সস্তান সেখানে গিয়া উপস্থিত হইবে। তাহাদিগের দ্বারা গড়, ঘাটির বাধ,