পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/১৮১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমার বোম্বাই প্রবাস చీ: অন্নদাতা তুমি সদা কর অন্নদান, হৃদি দেহ সত্য পুণ্যসব চৌদিকে ঘিবেছে মোরে সঙ্কট মহান— দয়াময় কর হে নিস্তার । বিদ্যায় তুমি হে মহামতি, অপব প্রভূত, অপর শকতি, ম{য়াজল রচয়িত অগতির গতি, পুর আজি ভক্ত মনস্কাম । শরণ পবমগতি, বহুশক্তিধারী, কব পাব ভগ্নতরি কত নবনারী, বিপদ তবঙ্গ মাঝে তুমিই কাণ্ডারী ; পূব ওহে ভক্ত-মনস্কাম । থাক (মর সাথে সৰ্ব্বকাল, লোক মাঝে দেহ ধৈর্য্যবল, সম্পদ বিপদে তুমি একই সম্বল, অভাগার ঘুচাও অকাল । সতত তোমায় সখা করি হে স্মরণ, ক{ঙ্গালের তুমিই তাধার, সেবকের স্তব স্তুতি কবহু গ্রহণ – দয়াময় দে ও হে নিস্তার । সোলাপুর সোলপুর জিলায় আমি অনেক বৎসর কৰ্ম্ম করি। ১৮৭৪ সালে বিজাপুর তাহার সহিত সংযুক্ত হইয়া এই দুই জিলা একটি জজিয়তাব অন্তভূত হয়। আমি প্রথম হইতেই এই কোর্টের ভার গ্রহণ করি এবং কোটেৰ সমুদায় কৰ্ম্মচারী নিযুক্ত করিয়া তাহাদের কার্য শৃঙ্খলা বাধিয়া দেওয়া, এ সমস্ত আমাকেই করিতে হয়। সোলাপুরে মল্লাপ্পা ( আল্পাসাহেব ) বারদ প্রমুখ কতিপয় দেশানুরাগী কম্মিষ্ঠ সজ্জন ছিলেন, তাহাদের উদ্যোগে কাপড়ের কল-কারখানা ও অন্তান্ত সাৰ্ব্বজনিক মঙ্গল কার্য্যের সূত্রপাতে ঐ পুরী অনতিকাল মধ্যে সৌভাগ্যশালী হইয় উঠে। আমার বন্ধু আপ্লাসাহেব বারদ এখন আর নাই, তিনি একটি নাবালক পুত্র সন্তান রাখিয় পরলোকগত, কিন্তু