পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/২৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


›ፃ8 আমার বোম্বাই প্রবাস কান্তকুম্ভাধিপতি শ্ৰীহৰ্ষ প্রথম বয়সে বৌদ্ধ ছিলেন । সপ্তম শতাব্দীর কোন সময়ে বৌদ্ধধৰ্ম্ম পরিত্যাগ করিয়া জৈনধৰ্ম্মে দীক্ষিত হন। - কিন্তু আগে পরে যিনিই আসুন, জৈনধৰ্ম্ম ও বৌদ্ধধৰ্ম্মে যে ঘনিষ্ট সম্বন্ধ সে বিষয়ে আর সন্দেহ নাই। তাহদের মধ্যে পিতা পুত্রের সম্বন্ধ না থাকুক উভয়কে পরস্পরের জাতভাই বলিয়া মানিতেই হইবে । উভয়েই এক মাতার সন্তান—কালক্রমে বৌদ্ধধৰ্ম্ম পৃথক হইয়া পড়িয়া বিশ্বজগতে ব্যপ্ত হইয়া গিয়াছে ; জৈনধৰ্ম্ম মায়ের কোল ছাড়িয়া দূরে যান নাই আবার তাহার সহিত মিলিত হইতে ব্যগ্র । বল্লভাচার্য্য গুজরাট হিন্দুদের মধ্যে বৈষ্ণবের সংখ্যা বিস্তর। বহুতর বণিক ও ব্যবসায়ী লোক বল্লভপষ্ঠী বৈষ্ণব । বল্লভাচার্য্যের উত্তরাধিকারী আচাৰ্য্যগণ ‘মহারাজ উপাধি ধারণ করিয়াছেন। খৃষ্টাব্দের- পঞ্চদশ শতাব্দীর শেষ ভাগে বল্লভাচার্য্য চম্পারণ্যে জন্মগ্রহণ করেন। র্তাহার চরিত্র সম্বন্ধে নানা অলৌকিক কাহিনী প্রচলিত আছে। তাহার মেধা এমনি তীক্ষ ছিল যে প্রবাদ এই যে, সাত বৎসর বয়ঃক্রমে তিনি বিদ্যাভ্যাস আরম্ভ করিয়া চতুর্মাসের মধ্যে চতুৰ্ব্বেদ, ষড়দর্শন ও অষ্টাদশ পুরাণ কণ্ঠস্থ করেন। তিনি বৈষ্ণব ধৰ্ম্মশাস্ত্রের নুতন সংস্করণ করিয়া শীঘ্রই ধৰ্ম্মপ্রচারে দেশবিদেশে বাহির হইলেন। ইতিমধ্যে তিনি একবার বিজয়নগরের রাজা কৃষ্ণদেবের রাজসভায় গিয়া স্মাৰ্ত্ত ব্রাহ্মণদের সহিত দার্শনিক তত্ত্ব লইয়া তর্ক বিতর্কে প্রবৃত্ত হন, তাহাদিগকে বিচারে পরাস্ত করিয়া বৈষ্ণবদের প্রধান আচাৰ্য্যপদে প্রতিষ্ঠিত হইলেন। পরে নয় বৎসরকাল ভারতবর্ষের নানা স্থানে পরিভ্রমণপূৰ্ব্বক অবশেষে কাশীবাসী হইয়া জীবন যাপন করিতে থাকেন। সেখানে বহুবিধ গ্রন্থ রচনা করেন, তাহার মধ্যে ভাগবত পুরাণের ভাষ্য বল্লভপন্থীদের বিশেষ আদরের সামগ্রী। দর্শনক্ষেত্রে তাহার মত রামানুজের বিশিষ্টাদ্বৈতবাদ বলা যাইতে পারে। কাশীবাসেই তিনি দেহত্যাগ করেন। বল্লভের ধৰ্ম্ম বিলাসের ধৰ্ম্ম—ভোগৈশ্বৰ্য্যপরায়ণ গৃহস্থের ধৰ্ম্ম । অন্তান্ত পণ্ডিতেরা বলেন যে, ধৰ্ম্মের পথ শাণিত ক্ষুরধারের স্তায় দুর্গম— “ক্ষুরস্তধারা নিশিতা দুরত্যয় দুর্গং পথস্তং কবয়ে বদন্তি” । বল্লভনির্দিষ্ট মার্গ অন্ততর—তাহা ত্যাগের মার্গ নহে, পুষ্টিমার্গ। উচ্চাঙ্গ বৈষ্ণবধৰ্ম্মে রাধাকৃষ্ণের প্রেম রূপকচ্ছলে গৃহীত—তাহ পরমাত্মার প্রতি জীবাত্মার প্রেমের প্রতিরূপ ; বল্লভধৰ্ম্মে এই স্বগীয় প্রেম পার্থিব ধূলি দ্বারা কলঙ্কিত হইয়াছে।