পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/২৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমার বোম্বাই প্রবাস ፮ ዓ ፭; সহর তোলপাড় করিয়া তুলিলেন, এই ভাবিয়া আমি মনে মনে লজ্জিত হইলাম আমার সৈন্যদল যদিও অল্পসংখ্যক তথাপি শিক্ষা ও শস্ত্রবলে বলবত্ত্বর সন্দেহ নাই। কিন্তু এই দুইয়ের মধ্যে অন্ত হিসাবে কত তফাৎ ! আমার সেনাগণ আমাকে জানে না চেনে না, যন্ত্রের দ্যায় আমার কাজ করিয়া যাইতেছে কিন্তু আমার সহিত তাহাদের কোন সহানুভূতি নাই। স্বামীর রক্ষকগণ র্তাহার শিষ্য, অনুরক্ত ভক্ত, তাহার উপদেশ শ্রবণের জন্য দূর দূর হইতে স্বেচ্ছাপূর্বক সমাগত হইয়াছে, তাহার কোন বিপদ হইলে শরীরের রক্ত দিয়া তাহার সংরক্ষণে প্রস্তুত—হায়, খৃষ্টান পাদ্রীদের প্রতি ভারতবর্ষীয়দের প্রীতি ও অনুরাগ এইরূপ কবে হইবে।” Bishop Heber's Journal– Ch. YX V. সহজানন্দ শীঘ্রই বুঝিলেন যে র্তাহার বিচ্ছিন্ন শিষ্যদের লইয়া একটি দলবন্ধনের প্রয়োজন, এই উদ্দেশে তিনি শিষ্যগণসহ বৰ্ত্তাল নামক এক বিজন পল্লীতে গিয়া লক্ষ্মীনারায়ণের একটি মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন এবং তথা হইতে ধৰ্ম্ম-প্রচার আরম্ভ করিলেন। এইক্ষণে বৰ্ত্তাল গ্রামে স্বামী নারায়ণ-পন্থীদের দুইটি মন্দির দৃষ্ট হয়। মন্দিরের ভিতর শ্ৰীকৃষ্ণের দক্ষিণে রাধিক ও বামে স্বামী নারায়ণের প্রতিমূৰ্ত্তি। কেমন সহজে তিনি কলিকালের দেবত হইয়া দাড়াইলেন-আশ্চৰ্য্য! আমাদের দেশে সাধু পুরুষের দেবাসন অধিকারের জন্ত অধিক প্রয়াস পাইতে হয় না। 象 এই ধৰ্ম্মপ্রাণ স্বামী তাহার জীবনের শেষপৰ্য্যন্ত প্রচার কার্য্যে নিযুক্ত ছিলেন। স্বামী নারায়ণ-ধৰ্ম্ম ক্রমে গুজরাটে সুপ্রতিষ্ঠিত হইল। স্বামিজী স্বীয় কাৰ্য্য পরিদর্শনার্থে ভ্রমণে বাহির হইতেন—ভ্রমণপথে অকস্মাৎ জররোগে আক্রান্ত হইয়া কাঠেওয়াড়ে মানবলীলা সম্বরণ করিলেন । , স্বামী নারায়ণ-পন্থীর দুই শ্রেণী—সাধু ও গৃহস্থ। সাধুরা অবিবাহিত, গেরুয়া বসন-ধারী সন্ন্যাসী। তাহদের সংখ্যা প্রায় এক হাজার। ইহারা সমুদায় সংসারবন্ধন ছেদন করিয়া ধৰ্ম্ম-প্রচারেই জীবন উৎসর্গ, করিয়াছেন। জাতি নির্বিশেষে সৰ্ব্বত্রই র্তাহীদের গতিবিধি-চাষ কুলী প্রভৃতি হীনজাতীয় লোকের মধ্যে এই ধৰ্ম্ম প্রবিষ্ট হইয়৷ সমাজে অশেষ উপকার সাধন করিয়াছে। স্বামী নারায়ণ ধৰ্ম্মগ্রন্থের নাম শিক্ষাপত্রী। ইহা স্বামী কর্তৃক সংস্কৃত ও প্রাকৃত ভাষায় দুই শত দ্বাদশ শ্লোকে বিরচিত—কতকগুলি র্তাহার নিজের রচনা, অন্তগুলি সংস্কৃত শাস্ত্রাদি হইতে সংগৃহীত। এই গ্রন্থখানি স্বামী নারায়ণী ‘বাইবেলী । ইহার আদ্যোপাস্ত ঐ সম্প্রদায়ের শিক্ষিত লোকের কণ্ঠস্থ ইহার সার কথাগুলি নিমে লিখিত হইল -