পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/২৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমার বোম্বাই প্রবাস స4 উৎসব মহারাষ্ট্র দেশে পূজাপাৰ্ব্বণ উৎসবাদি আমাদেরই মত, কেবল উৎসব বিশেষের মাহাত্ম্য গণনায় তারতম্য দেখা যায়। বাঙ্গলার দুর্গোৎসব এদেশে নাই । যদিও নবরাত্রি উপলক্ষ্যে কোন কোন হিন্দুগৃহে দুর্গাপূজা হয়, তথাপি বোম্বাইবাসীদের মধ্যে ইহার তেমন মাহাত্ম্য নাই। বিজয় দশমীই ( দশারা ) শারদোৎসবের বিশেষ দিন। সে দিন হিন্দুগৃহে আত্মীয়স্বজন বন্ধুর পরস্পর দেখা-সাক্ষাৎ, কোলাকুলি ও স্বর্ণচ্ছলে শমীপত্রের আদান প্রদান হয় । কথিত আছে পণ্ডিবেরা বিরাট রাজ্যে প্রবেশকালে এই দিনে শমীবৃক্ষতলে অস্ত্রশস্ত্র রেখে শমীপূজা করেছিলেন । তা থেকে এ অঞ্চলে বিজয় দশমীতে শমীপূজার রীতি প্রচলিত। সিন্ধু দেশেও এই প্রথা দেখেছি। মারাঠা দেশে দশারীর বিশেষ মাহাত্ম্য, কেননা এই সময়ে বর্গীরা শস্ত্রার্চনা করে মহাসমারোহে যুদ্ধযাত্রায় BBBBS BBBB BB BBB BB BBB BBB BBB BBB BB BB BBBB লোকের মেষ মহিষাদি বলিদানে মেতে যায় । ব্রাহ্মণদের মধ্যে প্রকাশু্যে পশুবলি ছয় না কিন্তু দেবী রুধিরপ্রিয়, গোপনে কি কাণ্ড হয় কে বলতে পারে ? তার নমুনা আমি যা কারওয়ারে পেয়েছি তা যদি সত্যি হয় তার থেকে অনুমান অনেক দূর পৰ্য্যন্ত গড়াতে পারে । কারওয়ারে আমাব একটি পরিচিত ব্রাহ্মণের বাড়ী দুর্গোৎসব হয়েছিল। উৎসবের পর সেই বাটীর এক ভূত্য বালহত্যা অপরাধে সেসনে সোপ% হয়। বিচারস্থানে বালহত্যার কারণ এই বলা হয় যে, গৃহিণী পুত্রসন্তান কামনা করে দেবীর কাছে নরবলি মানৎ করেছিলেন, সেই মানত-রক্ষা-মানসে ভূত্যকে দিয়ে এই কাণ্ড করান হয়। প্রমাণ হল যে আরতির সময় বালকটকে দেবীর সম্মুখে ধর হয়েছিল, পরদিন প্রভাতে গৃহপ্রাঙ্গণে বালকের মৃতদেহ পাওয়া যায়। খুনের উদেs চুরি নয়, কেননা বালকটির অঙ্গের আভরণ যেমন তেমনি ছিল, তা হরণ করবার কোন চেষ্টা করা হয়নি ; অপর কোন উদেখও প্রকাশ পায়নি—বলি অনুমান নিতান্ত অমূলক বলে বোধ হল না। দশারার পর দেওয়ালী। ইহাই বোম্বাইবাসীদের প্রধান উৎসব। সাধারণ সকল সম্প্রদায়ের লোকেই এতে যোগ দিয়ে থাকে। হিন্দু মুসলমান পারসী সকলেই নিজ নিজ গৃহে রোসনাই দিয়ে উৎসবে মত্ত হয়। ধন-ত্রয়োদশী হতে এই উৎসবের আরম্ভ ও অমাবস্তায় শেষ। বাঙ্গল দেশে এ সময় কালীপূজা হয়, কিন্তু বোম্বাই প্রদেশে এই উৎসবের অধিষ্ঠাত্রী-দেবতা লক্ষ্মী। অমাবস্তার দিন বিক্রম সম্বৎসরের শেষ দিন, সেই দিনই উৎসবের প্রধান দিন। সেই দিনই চারিদিকে রোসনাইয়ের ঘট । সেই দিন