পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/৩০৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


રં૭ના আমার বোম্বাই প্রবার্স সমাজ ও ধৰ্ম্মসংস্কার পৌত্তলিকতা ও জাতিভেদ আধুনিক হিন্দুসমাজের সারভূত ছুই প্রধান অঙ্গ । ছিন্দুসমাজ-শৃঙ্খলার মূলে জাতিভেদ ও হিন্দুধৰ্ম্মের অস্থিমজ্জা হচ্ছে পৌত্তলিকতা । সমাজসংস্কৰ্ত্তাগণ কাল বিশেষে ও অবস্থা বিশেষে কেহ জাতিভেদ প্রথা, কেহ বা পৌত্তলিকতা এই দুই ভিত্তির উপর সাধ্যানুসারে অস্ত্রাঘাত করে আসছেন। সমাজ-সংস্কারের প্রতি র্যাদের একান্ত লক্ষ্য তাহারা জাতিভেদ উন্মলন করতে ব্যগ্র । ধৰ্ম্মসংস্কার যাদের একমাত্র উদ্দেশু তারা পৌত্তলিকতার উচ্ছেদ সাধনে যত্নবান। ভারত ইতিহাসে সময়ে সময়ে ধৰ্ম্ম ও সমাজ-সংস্কারের পূর্বাপর একান্ত চেষ্টা দেখা যায় কিন্তু ধৰ্ম্মবীরের অনেক সময় পরাস্ত হয়ে রণে ভঙ্গ দিয়ে পালিয়ে আসেন। বোম্বাই প্রদেশে হিন্দুয়ানীর দুর্গ আটে ঘাটে এমনি দৃঢ়বদ্ধ, জাতিভেদের শৃঙ্খল এমনি কঠোর যে তা ভেদ করা কঠিন ব্যাপার। রক্ষণশীল হিন্দুসমাজের বাধা দেবার ক্ষমতা প্রচুর, উন্নতির পথে এগোবার শক্তি নেই। এই সমাজে যা কিছু পরিবর্তন, যা কিছু উন্নতি প্রত্যক্ষ হয় তার বারে আনা বাইরের সংস্রবে, সমাজের নিজস্ব নৈসর্গিক বলে তা সাধিত হচ্চে বোধ হয় না ; সে সবই প্রায় ইংরাজি শিক্ষার ফলে, পাশ্চাত্য সভ্যতার সংঘর্ষে। সে যাই হোক, বিপক্ষ দল যতই বল প্রয়োগ করুক না কেন, হিন্দুসমাজ তার তেত্রিশ কোটি দেব দেবী ও অগণ্য ব্রাহ্মণ পণ্ডিত নিয়ে অটলভাবে রাজত্ব করছেন ; ওদিকে র্তার ক্ৰক্ষেপ নেই। র্তার প্রভূত প্রতাপ প্রতিরোধ করতে পারে এমন বল সমাজে আছে কি না সন্দেহ। রাবণ বধের জন্তে রামের মত বীর চাই-ত কোথায় ? সমাজ-সংস্কার সমাজ-সংস্কার সম্বন্ধে হিন্দু সাধারণের নিশ্চেষ্টভাব দেখে কষ্ট বোধ হয়। যে পরিমাণে স্ত্রীশিক্ষা বিস্তার হওয়া উচিত তার তৃপ্তিজনক কোন লক্ষণ দেখা যায় না। বোম্বায়ের লোকেরা অনেকে আমাদেরই মত বিবাহাদি গৃহ-অনুষ্ঠানে অপরিমিত ব্যয় করে বিপদগ্রস্ত হয়ে পড়েন, বায় সঙ্কোচের দিকে কারো দৃষ্টি নেই। কিন্তু বিবাহের ব্যয় সংক্ষেপ করা ত সামান্ত ব্যাপার, আসল যে দিকে আমাদের লক্ষ্য দেওয়া উচিত সে হচ্ছে বাল্য-বিবাহ ও বিধবা-বিবাহ। বাল্য-বিবাহ বাল্য-বিবাহ-এ এক বিষম রীতি । শুধু বোম্বায়ে কেন, বাল্য-বিবাহের বিষম স্কল ভারতের সর্বত্রই অল্পবিস্তর প্রত্যক্ষ করা যায়। বস্তাকে অত ছোট বয়সে পিত।