পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/৩১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૨ર્ક8 আমার বোম্বাই প্রবাস এই অত্যাচারের প্রতিকার হয় তাহাই প্রার্থনীয়। এই প্রস্তাদের প্রতিবাদ করে র্যার হিন্দুধৰ্ম্মের দোহাই দিয়ে চীৎকার আরম্ভ করেছেন, তার প্রকৃতপক্ষে হিন্দুধৰ্ম্মের ' কলঙ্ক রটনা করছেন তা কি বোঝেন না ? আমি দেখতে পাই দক্ষিণে জাতিভেদের নিয়ম নিরতিশয় কঠোর, আমাদের জাতীয় একতাবন্ধনের পথে বিষম কণ্টক ! এক এক জাতির ভিতরে যে কতগুলি শাখা তার অন্ত নেই। এক ব্রাহ্মণবর্ণ দেখ, স্থান ভেদে তার মধ্যে কত শাখা ভেদ, এমন কি নদীর এপার ওপার হলে পরস্পর আদান প্রদান বন্ধ। মারাঠী ব্রাহ্মণের প্রধান তিন শাখা-দেশস্থ, কোকনস্থ ও কহাড় । জগত একই, কেবল মূল নিবাস আলাদা । তাদের পরস্পর পান ভোজন চলে কিন্তু বিবাহ সম্বন্ধ হয় না, আমাদের রাটী বারেন্দ্র যেমন । পেশওয়াদের আমলে একবার এই দলাদলি ভাঙবার চেষ্টা হয়েছিল, কেননা দেখা যায় যে বালাজী বাজিরাও পেশওয়া যদিও কোকনস্থ ব্রাহ্মণ, তবুও দেশস্থ ব্রাহ্মণ কন্ঠার পাণিগ্রহণ করেছিলেন । এষ্ট তিন শাখার একত্রীকরণ তাহার উদ্দেশু ছিল সন্দেহ নাই কিন্তু সে উদ্দেশ্য সিদ্ধ হয়েছে বলা যায় না, কেননা এই আন্তর্জাতিক বিবাহ যে প্রচলিত দেশাচাব বিরুদ্ধ, তা অস্বীকার করা যায় না । সমাজ-সংস্কার সভা সমিতিতে এই শাখাত্রয়ের ঐক্যবন্ধন একটা প্রধান আলোচ্য বিষয় । বোম্বাই অঞ্চলে সেনই বা সারস্বত নামে এক জাতীয় ব্রাহ্মণ আছেন। সুবিখ্যাত জষ্টিস্ তেলঙ্গ- এই জাতীয় ব্রাহ্মণ ছিলেন, এইক্ষণকার হাইকোর্ট জজ চন্দবারকরও সারস্বত ব্রাহ্মণ। ইহাদের জাতিতে আমিষ ভক্ষণ, বিশেষতঃ মংস্তাহার নিষিদ্ধ নহে। উচ্চকুলাভিমানী ব্রাহ্মণের সেনইকে আমিষাশী আচারভ্রষ্ট বলে অবজ্ঞা করেন, তাদের চোখে সেনষ্ট ব্রাহ্মণ ব্রাহ্মণই নয়। আমাব একটি সেনই বন্ধু কোন মফস্বল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন, তার সঙ্গে আমার এ বিষয়ে একবার কথা হচ্ছিল। তিনি বল্লেন, “এ অঞ্চলে আমার স্বজাতীয় কেহই নাই, এক প্রকার নিৰ্ব্বাসন যন্ত্রণ ভোগ করছি। কখনো কোন ব্রাহ্মণের বাড়ী নেমন্ত্রণে যেতে হয়, গিয়ে দেখি তাদের সঙ্গে আমাদের মেলামেশা সম্ভবে না। ব্রাহ্মণ মহিলারা তামার স্ত্রীকে দূরে রাখতে চেষ্টা করেন, তাকে যেন ছোয়াতেও দোষ। ভোজনে আমাকে সমান পংক্তিতে বসতে দেন ন, আমার স্বতন্ত্র আসন, স্বতন্ত্র বাসন হতে পরিবেশন । নেমন্ত্রণে গিয়ে এরূপ অপমান সহ হয় না। তাই আমি মনে মনে প্রতিজ্ঞ করেছি যে, বামন বাড়ীতে আর নেমন্ত্রণ খাওয়া নয়।” এই উদাহরণ হতে ও-দেশের জাতিভেদের কঠোরতা উপলব্ধি করা যায়। কিন্তু বোম্বায়ে জাতিবন্ধন যতই কঠিন হোক না কেন, কালের স্রোতে তার বাধন