পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অামার বাল্যকপ 次電 পণ্ডিত মহাশয় । যখন উপর হতে প্রচণ্ড পণ্ডিত ডাকিতে লাগিল হয়ে বিষম কুপিত, হাসিখুসি ঘুরে গেল তথন সবার দল সাথে স্নান মুখে চলেন সদর । পণ্ডিত মুহূৰ্ত্ত পরে অইল সেখানে । চসম৷ বহির ক’রে পরে সাবধানে | খসিবার ভয়ে তাহ পরিল কলিয়, তার পরে যুত করে লইল বসিয়া । শিষ্যদের অরম্ভিল পরে শিক্ষা দিতে ; ভূত পলাইয়া যায় কথার ভঙ্গিতে । “এস দেথি তোমাদের দেখি একবার । তোমাদের সঙ্গে হ’ল পেরে ওঠা ভাব । আজ কল তোমাদের অনিয়ম ভারি, বাবুকে ন বলে আর থাকিতে ন পারি।" “ভারি নাকি অনিয়ম” ছাত্র এক কয় | পণ্ডিত হাদিয বলে “অনিয়ম নয় ? লঙ্গ করে না তোমার বলিতে ও কথা ? পড়া শুন ত্যাগ করি ছিলে সব কোথা ? দেখ দেখি চেয়ে কত হষ্টয়াছে ব্যtল ? ছি ছি ছি বিদ্যার প্রতি এত অবহেলা । যtও পড়ে কাজ নাই, কর গিয়ে খ্যtল ,” এই ব’লে ঘাড় ধরে দিল এক ঠাল ৷ কৈলাস মুখুয্যে ছিল বসে এক কোণে, মুচকি মুচকি হাসি সব কথা শোনে । একজন চুপে কহে "হাদিছ যে বড় ?” কৈলা ইঙ্গিতে কহে “কৰ্ত্ত থাপা বড় !" তেতালায় দুপুর রাত্রি। গভীর নিশীথ মাঝে-বাজে দ্বি প্রহর । শ্রমশ"ন্তি সুধাপানে মজে•চরাচর ॥ নিশির উদার স্নেহে ঢালি দিয়া বুক । ভুঞ্জিতেছে বহুমতী বিশ্রামের স্বখ ॥.