পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমার বাল্যকথা 翰> তুলনায় বিশুদ্ধ সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই। দুএকটি ব্যতিক্রম থাকতে পারে ; যেমন মহারাষ্ট্রে দেখেছি "দ’এ ’ন’এ ‘জ্ঞ’র উচ্চারণ হয় ; কিন্তু সেগুলি ধৰ্ত্তব্যের মধ্যে নহে। অতএব এ ক্ষেত্রে অমর নিশ্চয়ই ওসকল স্থানের সংস্কৃতজ্ঞদের গুরুস্থানীয় বলে মেনে নিতে পারি। সে ষ, হোক্‌, আমার মনে হয় বঙ্গদেশে সংস্কৃতের উচ্চারণ-সংস্কার নিতান্তই প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে এবং আমাদের সংস্কৃতানুরাগী বিদ্বন্মগুলী এবিষয়ে মনোযোগ করুন, এই আমার সবিনয় নিবেদন । বিদ্যালঙ্কার মহাশয়েব নিকট সংস্কৃত-সাহিত্যে আমাব যা কিছু জ্ঞানলাভ হয়, সিবিল সৰ্ব্বিস পরীক্ষায় সেই বিদ্যাটুকু আমার বিলক্ষণ কাজে এসেছিল। অামাব সময়ে সংস্কৃত ও আরব্য ভাষায় ৫০০ মার্ক পুর্ণমাত্রা নিৰ্দ্ধারিত ছিল। এই ৫০০ মার্কের মধ্যে আমি সংস্কৃতে ৩৫০-এরও উপব পেয়েছিলুম। আমার পরীক্ষক ছিলেন ভট্ট মেক্ষমূলর । তিনি আমাকে যথেষ্ট স্নেহ কবতেন । বোধ করি আমার লেখা পরীক্ষা করবার সময় আমার কাগজটার উপরে একটু সদয়ভাবে চোখ বুলিয়েছিলেন, নইলে অত উচ্চ সংখ্যা পাবার আমার অংশ ছিল না । আমি সিবিল সৰ্ব্বিস পরীক্ষায় লাটিন গ্রীকের পরিবর্তে আমাদের দুই Classic–সংস্কৃত ও আরবিক নিয়েছিলুম। ওখানকার ছাত্রদের নিজের ভাষায় অথবা ওদের চিরাভ্যস্ত লাটিন গ্ৰীক ভাষায় যদি আমাকে পৰীক্ষা দিতে হত, আর আমাদের ক্লাসিকদ্বয় তালবেতালরূপে যদি আমার সহায় না থাকত তাহলে ঐ পরীক্ষায় আমার জয়লাভের কোন সম্ভাবনাই থাকত না । ঈশ্বরচন্দ্র নন্দী Oriental Seminaryর হেড মাষ্টার ঈশ্বরচন্দ্র নন্দী আমাদের ইংরাজি শিক্ষক ছিলেন ।--ধীর শাস্তপ্রকৃতি, সুবিদ্বান— তার কি এক মোহিনী শক্তি ছিল আমরা সহজেই র্তাকে মেনে চলতুম, আমাদের উপর তার কোন জোর জবরদস্তী করতে হ’ত না । আমাদের কাছে তার ডাক-নাম ছিল কেবলমাত্র “Str”—‘Sii’ এসেছেন শুনলেই আমরা গিয়ে হাজির। বিদ্যালয়ে আমাদের যে সকল পাঠ্য পুস্তক ছিল তা ছাড়াও তিনি আমাদের অনেক বই পড়তে দিতেন। তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য—Gibbon’s Decline and Fall—‘রোম রাজ্যের অবনতি ও পতন’ যার পত্রে পত্রে ঘোরতর রাষ্ট্র-বিপ্লব, রোম সম্রাটের অমামুষিক কাণ্ড-কারখানা—গিবনের মৃদঙ্গগম্ভীর ভাষায় পড়ে স্তম্ভিত হ’তে হ’ত। এতদ্ভিন্ন ইংরাজি প্রবন্ধাদি লেখা, বক্তৃতাদি অভ্যাস করা, এ সকলের প্রতিও তিনি মনোযোগ দিতেন। যাতে আমাদের ইংরাজি ভাল বলবার ক্ষমতা জন্মে সেই উদেশে