পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমার বোম্বাই প্রবাস

  1. বোম্বাই যাত্রা :

আমি সিবিল সৰ্ব্বিস পকেটে কবে ১৮৬৪ সালেব শেষভাগে ইংলণ্ড হ’তে দেশে ফিরলুম। পথের মধ্যে একপাব ইটালীব বিখ্যাত পুব Florenceএ নেমে জামাব বন্ধু LLLLLLLLSB BBBB BBBBB BBB BBS BB S BBBBS LLLS LSSSD ছাত্রাবাসে তার BB BBB KBB BBBS BB BB BBB BBB BBB BBB BB নিয়ে আতিথ্য-দান করলেন । পুলজকীৰ হুঙ্গবিজাতীয় সন্ত্রান্ত বংশেধ লোক ; তাদেব সঙ্গে আমাদের অনেক বিষয়ে চরিত্রগত মিল দেখা গেল। তাদের রীতি নীতি দেখে মনে হ’ত তাদেব থব যেন পূৰ্ব্ব পশ্চিমেব সন্ধিস্থল, আমাদেব মত কতকটা ঢিলেঢাল। BBBBB BB BB BBBBBB BBBB BBBS LLLLLLLLSB BBS BBBBBB কলাকৌশলেব নিদর্শন বিবিধ সামগ্ৰী সংগ্রহ করেছিলেন ও আমাদেব দেশেব প্রতি BB BB BBBBBS BBBB BBBB BBB BBBB S LLLLLLLL BBBB BBBBS প্রভৃতি যা যা দইবা দেখতে দেখতে ঐ তৃঙ্গবীয় পরিবার মধ্যে সপ্তাহকাল সুখস্বচ্ছন্দে অতিবাহিত হ’ল। নগরের মধ্যে কত উৎকৃষ্ট ফলের বাগান, আমধা আঙ্গুব ও আঞ্জীর (Fig) পেড়ে খেতুম—সে যে কি মিষ্টি লগত কি অব বলব ! পুল্জকা পরিবারের একটি বালিকা আমার এমন হাওটো হয়েছিল যে, সে কিছুতেই আমাকে ছাড়তে চায় না --তাকে আমি দু একটি বাঙলা গান শিখিয়েছিলুম-শেষে কত চোখেৰ জল ফেলে আমার কাছ থেকে বিদায় নিলে । সেই ছবিটি এথনো অামাব মনে অঙ্কিত আছে । Florence s’tē Pisa–Pisa-st stagg (leaning tower) দর্শন করে জিনিবায় এক পূৰ্ব্বমুখী ষ্টীমাব ধরে যথাসময়ে কলকাতায় এসে উত্তীর্ণ হলুম। বাড়ী এসে আত্মীয় স্বজনের সহিত দেখা সাক্ষাৎ, বন্ধুবান্ধবদেব অভিনন্দনের মধ্যে সময়ট বিদ্যুৎবেগে চলে গেল। আমাদের বড়লাট তখন Lord Lawrence, ছোটলাট Sir Cecil Beadon—দুই কৰ্ত্তারই দর্শন স্পর্শন মিষ্ট্রভাষণ লাভ হ’ল। প্রথম সিবিলিয়নকে অভ্যর্থনা করবার জন্যে বেলগেছে ( ছায়, সে বাগান অব আমাদেব নাই ) এক বিরাট সভা আহূত হ’ল, সেখানে কলকাতার গণ্যমন্ত অনেকে উপস্থিত ছিলেন। তাদের সঙ্গে আমাব

  • এই ভাগের অনেক কথা আমার প্রণীত “বোম্বাই চিত্র" হইতে সংগৃহীত।