পাতা:আমার বাল্যকথা ও আমার বোম্বাই প্রবাস.pdf/৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


to o আমার বোম্বাই প্রবাস ইংলণ্ড প্রবাসের অনেক কথাবাৰ্ত্ত হ’ল। তখন মনে মনে অহঙ্কার হ’ল যেন কি একটা DD DD BBB BBBBBB BBBS gg BBB BBS BBB BBBBB BB BB ও আমার স্ত্রী- আমবা দুটিতে মারে চড়ে বেরিয়ে পড়লুম। সে সময়ে বোম্বাই ও কলিকাতার বন্ধনী রেলগাড়ী ছিল না, প্রধানতঃ সমুদের উপব দিয়েই গতিবিধি । মাঝে মাঝে এক এক স্থানে পাথেয় সংগ্রহ করা, বাণিজ্য দ্রব্যেব আদান প্রদান, এই রকম কবে আমাদের জাহাজ থেমে থেমে চলতে লাগল। বোম্বাই পৌছতে আমাদের প্রায় এক মাস অতীত হয়ে গেল। মান্দাজে নেমে মুদলিয়ার নামে একটি DBB BBBB BBBB BBB S BBBB BB BBB BBBB BBBB DD S BB নিরামিষভোজী, ইংলণ্ডে তার তান্নকষ্ট্রের গল্প করতেন, দুধ ও ফলাবের উপবেই অধিকাংশ BBB BB BBBB BBBB BBBB BBBB DSDS BBBB BBBB BBBB BBB রক্ষা কবে চলতে হ’লে যে কি কষ্ট তা যে ভুক্তভোগী সেই জানে। মুদলিয়ার বেশ ইংবাজি বলেন, তবে সঙ্গে মন খুলে কথা কপার কোন বাধা নাই ; কিন্তু তাব অন্তঃপুৰবাসিনী মহিলারা ইংরাজিব কোন ধার ধারেন না, না তাব আমাদেব ভাষা বোঝেন, না আমবা তাদেব ভাষা বুঝি, কেবল ইঙ্গিত ইসরায় আমাদেব কথাবার্তা BBBS BBB BB BBB BBBB BBBB BBBBDD BBB BS BB BB BBBB BBBB BBBBBBBBB BBB BB BBB BDS BBBB BBBS BBBBBB উপর সাজানে, ডাল ভাত চাটনী তরিতরকাধী দধি পায়স মিষ্টান্ন মিলে আমাদেব ভূরি ভোজনের আয়োজন হ’ত । আমরা যে মান্দ্রাজে নেমে ডাঙ্গায় দু তিন দিন কাটিয়েছিলুম সে আমাদের ভাগ্যি বলতে হবে—-জাহাজে ফিবে গিয়ে শুনি যে, ইত্যবসরে বরুণ দেবের কোপে ঝড় তুফান উঠে সমুদ্র তোলপাড় হয়ে গিয়েছে, জাহাজের দোলায় যাত্রীরা ব্যতিব্যস্ত, তীর থেকে মধ্যসমুদ্রে জাহাজ নিয়ে যেতে হয়েছিল। আমাদের একটি দাসীর মুখে শুনলুম, তাদের দুর্দশার আর সীমা ছিল না। পথে আমাদের আর কোন উপদ্রব হয় নাই। আমরা এইরূপে ধীরে ধীরে বোম্বাই গিয়ে পৌছলুম। বন্দরে উঠে দেখি, মণিকজ করসদজী নামক একটি পারসী ভদ্রলোক আমাদেব জন্ত অপেক্ষ করছেন । তিনি আমাদিগকে অভ্যর্থনা করে তাদেব বাড়ী নিয়ে গেলেন, তাদের গৃহে প্রায় তিন মাসকাল আমরা অতিথি হয়ে রইলুম। সেই অজ্ঞাত সহর, অপরিচিত লোকের মধ্যে বাস, এই অবস্থায় তাব বাড়ীতে স্থান পেয়ে বড়ই সুবিধা হয়েছিল, তাদের এই অযাচিত অনুগ্রহ আমাদের পরম ভাগ্য মনে করলুম। তার গৃহে বাস করে বোম্বাই সম্বন্ধে আমাদের অনেক অভিজ্ঞতা জন্মল । ভাওদাজী, জমসদজী জিজিভাই