পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


છે૩ - श्रांभिश् ७ निद्रांनिश फ्रांक्षांब्र । এই প্রথা মন্ম নয় । ইহাতে উভয় পক্ষেই সুবিধা । এক হরিদ্রাদিতে কাপড় ময়লা হয় না। দ্বিতীয়তঃ আগুণে কাপড় উড়িয়া পড়িবারও সম্ভাবনা অল্প। আমাদের দেশের স্ত্রীলোকরা যে রকম আলগা রকমে কাপড় পরিয়া থাকে, তাহাতে অনেক সময় ফেন গড়াইতে, কি কড়া ইত্যাদি ধরিতে গিয়া আঁচলট আগুণে পড়িয়া পুড়িয়া যাওয়া সম্ভব । রাধিবার সময় পরিহিত বস্ত্রাদি সম্বন্ধে বিশেষ সতর্ক হওয়া উচিত। কেহ কেহ আঁচলটা কোমরে বঁাধিয়া রাধিতে যান । ইহাতে কতকট নিরাপদ হয় বটে । আমাদের বামুনের যেমন কাপড়ের উপর একটা গাম্‌ছ জড়ায় যুরোপীয়েরাও সেইরূপ একটা আচ্ছাদন জড়ায়। তাহাকে ইংরাজীতে এপ্রন বলে। রান্নাঘর । আহাৰ্য্য অপরিস্কার দেখিলে মামুষের স্বভাবতই খাইতে রুচি হয় মা, আহার্য অপরিস্কার হইবার এক প্রধান কারণ রন্ধনগৃহ অপরিস্কার থাকা । রন্ধন গৃহের পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে আমরা তত দৃষ্টি রাখি না। আমাদের রান্নাঘরের পাশ্বেই যত পচা জিনিষ জমা হইয়া থাকে। তাহার দুর্গন্ধে অনেক সময়ে সেখানে তিষ্ঠা কঠিন হয়। কয়লার গুড়া, ছাই, তরকারীর খোদা, মাছের আঁশ, সব একত্র হইয় রান্নাঘরের পাশ্বেই পচিতেছে । তাহাতে মাছি রোয়ানি সৰ্ব্বদা ভ্যান ভ্যান করিতেছে, এবং সেই মাছিই আবার উড়িয়া আদিয়া খাবারে বসিতেছে। অনেক সময়ে ছাই প্রভৃতি বাতাসে উড়িয়া আসিয়া থাকে। অতএব রান্নাঘরের নিকটে আবর্জনা রাশি সংগ্ৰহ করিয়া রাখা কোন মতেই কৰ্ত্তব্য নহে । রান্নাঘরের