পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/১৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায়। ভীত । প্রয়োজনীয় কথা । আমাদের ভাতটাই প্রধান খাস্ত দ্রব্য, সেই জন্ত ভাত হইতে আরম্ভ করিয়া ক্রমে ক্রমে অন্যান্ত সামগ্রী রাধিবার বিষয় লেখা যাক । মনের একান্ত নিষ্ঠ না থাকিলে কোন বিদ্যাই আয়ত্ত হয় না । যে কোন কার্য্যই করিতে বাও না কেন মনোযোগের সহিত তাহ করা চাই । রন্ধন কার্য্যে এই মনোযোগ অত্যন্ত আবশ্যক । কারণ ইহাতে সামান্ত অমনোযোগে সিদ্ধি তে৷ দূরের কথা, অনেক বিপদের সম্ভাবনা । কি তরকারী বানাইবার সময়, কি রাধিবার সময়, লোকের সস্থিত গল্প করিতে করিতে কি অন্য কোন কারণে, অন্যমনস্কভাবে কাৰ্য্য করা উচিত নহে । ইহা বোঝা উচিত যে রাধিধার কালে তীক্ষুধার ছুরি, বটি এবং আগুণ প্রভৃতি লইয়া কাজ কৰ্ম্ম করিতে হয় । একটুতে হয় তে হাত কাটিয়া যাইতে পারে, কিম্ব তপ্ত তেল, ঘি গায়ে পড়িয়া যাইতে পারে। রন্ধন গৃহে গিয়া রাধিতে বসিবার পূৰ্ব্বেই খাদ্য সামগ্রী রাধিবার, ঢালিবার, রাখিবার পাত্র সকল কাছে গুছাইয়া রাখিতে হইবে ; এবং দেখিতে হইবে যে সে সকল পরিচ্ছন্ন আছে কি না । পরে তেল, মুন, ঘি এবং মশলা প্রভৃতি রাধিবার উপকরণ সমুদয় হাতের কাছে আনিয়া রাখিতে হইবে ; তা না হইলে রাধিবার হাড়ি চাপাইয়া তেল, মুন কি মশলার জন্য লোক পাঠান