পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/১৮৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায় । ፃ?; পাত্রে রাখিয় দীও । রসটাতে একটী রসাল কাগজিনেবুর রস দাও । চীনে কাগজি হইলে তাহার দু এক চাকার রসেতেই হইয় যাইবে । কাঠের হাতা দিয়া রসটা মিশাইয়া লও। এখন সিরার ষ্টাড়িটা ধুইয়া উহাতেই আধ পোয় ঘি চড়াও । ঘি গলিয়া যাইলে দুই গির দুরিচিনি, নয় দশটা লঙ্ক, জায়ফল তিন চার রতি (একটু গেতো করিয়া লইতে হুইবে), তিন চারিটা ছোট এলাচ, জৈত্রী দুই তিন রতি ছাড়িয়া দf ৪ । দুই তিন মিনিটে ঘি দাগ দেওয়া হইলে পর একটী পাত্রে ঘিট ঢালিয়া রাথ । দাগ দেওয়া মশলা গুলা হাড়িতেই থাকুক। এই বারে হাড়িতে মশলার উপরে দুই সের জল ঢাল । মশলা গুলার উপরেই জল দিলে ভাতে বেশ গন্ধ হইবে । জল ফুটিয়া উঠিলেই ধোয়া চালগুলি ঢালির দাও । চাল দিবার মিনিট চার পচি পরে পাচ ছয় কুঁচ জাফরান, দুইট কাগজি লেবুর রস ( চীনে নেবুর রস হইলে দুই fতন চাকাতেই হইবে,) এবং এক পোয়াটাক দুধ দিয়া একবার নাড়িয়া দিয়া ঢাকিয় রাখ। ইহার চোঁদ পোনর মিনিট পরে ভাত নামাইয়া ফেন পশা ও । আটটা ছোট এলাচ কাগচে পুরিয়া তাহার উপরে নোড়া দিয়া রিয়া থেতো করিয়া রাখ । এইবারে একটি বাসনে অদ্ধেক ভাত উঠাইয়া রাখ। তার অৰ্দ্ধেকট ইড়িতেই রাখিয় দাও । হাড়ির মধ্যে ভাতের ভিতরে গৰ্ত্ত কর । ভাতে আটটা ছোট এলাচ ও মাঝারি চামচ গোলাপ জল ছড়াইয়া দাও । সমস্ত পেয়ারা, কিসমিস প্রভৃতি সিরার মেওয়া গুলি এই গর্তের ভিতরে দিয়া তার পরে অবশিষ্ট ভাতগুল বাসন হইতে উঠাইয়া পেয়ারাগুলির উপরে চাপা দাও, ইহার