পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/২০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


१०२ আমিষ ও নিরামিষ আহাঁর । মরিয়া ভাত সিদ্ধ হইলে হাড়ি নামাইবে ; কিন্তু এই সময়ের মধ্যে দু তিনবার দেখিয়া নাড়িয়া দিতে হইবে। ভাত রসে যেন জবজবে হইয়া থাকিবে । মনে হইবে যেন জল আছে, কিন্তু বাস্তবিক চিনি আর ঘিয়ে এইরূপ দেখিতে হয় । যখন পাত্রে ঢালিয়া দিবে তখন ভাতের উপরে ভাজা বাদাম পেস্তা ও মনেক্কাগুলি ছড়াইয়া দিবে। ৩৪ । হিন্দুস্থানী কোপ্ত পোলাও । উপকরণ।-ছোলার ছাতু দু ছটাক বা আড়াই ছটাক, কুন আধ তোলা, ধনে আধ তোলা, জিরে আধ তোলা, গোলমরিচ আধ তোলা, লঙ্গ পাৰ্টট, লঙ্কামরিচ চার পাঁচটা, তেজপাত একট, দালচিনি দু একগির, ছেচা আদা আধ তোলা, ঘি এক কঁচা, দেশী কাগজিনেবু একট, জল এক পোয়। এইগুলি কোপ্তার মসলা । ছোলার ডাল আধ পোয়া, ছেচ আদা এক তোলা, তেজপাত দুইটা, দালচিনি একগিল্প, লঙ্গ পাচটা,জল তিন পোয় । এইগুলি তীখলির মসলা । চাল আধ পোয়া, ঘি এক ছটাক, দালচিনি দুখিরা, vতজপাত দুইটা, ছোট এলাচ পাচটা, লঙ্গ দশটা, হলুদ বাট সিকি তোলা । এইগুলি চালভাজা মসলা । পুরু সর আধ পোয়, চিনি আধ তোলা । প্রণালী । —এক র্কাচ্চ ঘি চড়াইয় তাহাতে আধ তোলা ধনে, অtধ তোলা জিরা, আধ তোলা গোলমরিচ, এক গিরা দালচিনি, একটা ছোট এলাচ, চারটা লঙ্কামরিচ, একটা তেজপাত। এই