পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/২০৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায় । oచి) সলাগুলা ভাজ । ধি গরম হইলে মসলাগুলি ছাড়িবে এবং মিনিট দুই তিন পরে ভাজা মসলা নামাইবে। ভাজা মসলাগুলা শিলে মিহি করিয়া পিষিয়া লও। পিধিবার সময় জলের একটু ছিটা দিয়া পিষিবে। আধ পোয় বা আড়াই ছটাক ছোলার ছাতু, আধ তোলা মুন, মসলা-ভাজ বাকি ঘি (এক কাচ্চা), একটা দেশী কাগজিলেবুর রস এবং পেষ। ভাজা মদল। এই সব একত্র মাখ । লুচির ময়দা যেমন মাথে সেইরূপ জল দিয়া মাখিয়া গুন্দি বা তাল করিয়া রাখ । ইহা হইতে কুড়ি পচিশটি গোল কোপ্ত বানাও। ইচ্ছা করিলে এক তোলা পেঁয়াজ ভাজাও পিষিয়া ছোলার ছাতুর সহিত মাখিয়া লইতে পার। কোপ্ত ভাজিবার জন্য দুই ছটাক ঘি চড়াও ; ঘি গরম হইলে কোপ্ত ছাড়িয়া ভাজ ;- কোপ্তাগুলা লালচে লালচে রং হইলেই নামাইবে । অtধ পোল্লা ছোলার ডাল, এক তোলা ছেচ আদা, দালচিনি এক গির, দুইটা তেজপাতা, পাঁচটা লঙ্গ এবং তিন পোয় জল আঁথনির জন্য চড়াইয়া দাও । কুড়ি পঁচিশ মিনিট আন্দাজ পরে, ডালগুলা সিদ্ধ হইলেই আঁথনি নামাইবে । এইবারে চাল ভাজিতে হইবে। আধ পোয় চাল ধুইয়া বাছিয়া রাখ। এক ছটাক ঘিয়ে দুই গির দালচিনি, তেজপাত দুটা (ভাঙ্গিয়া দিবে), ছোট এলাচ পাচটা, লঙ্গ দশটা ছাড়। মসলা ফুটুফাটু করিলেই সিকি তোলা হলুদ বাট একটু (আধ ছটাক আন্দাজ) জলে গুলিয়া ঘিয়ে ছাড় । তার পরে চাল ছাড়িয়া খুস্তি দিয়া খুব নাড়িয়া চড়িয়া ঢাকা দাও। মিনিট দুই তিন পরে আধ তোলা জুন ছাড়িয়া দিয়া দেড় পেীয়া আঁখিনি