পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/২২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


$$$ • অামিম ও নিরামিষ আহার। হইয়া আসিলে, এক তোলা পরিমাণ মুন দিবে। এই সময় হইতে হাত দিয়া মাঝে মাঝে ঘুটিয়া দিবে। এই সময়ে খিচুড়িতে ভাজা পেঁয়াজ গুলি ছাড়িয়া দাও আর মুঠাখানেক কচি কচি কড়াইগুটি দাও। ক্রমে ডালে ভাতে মিশিয়া বেশ গাঢ় হইয়া আসিলে নামাইবে । ৪৩। মম্বর ডালের গিল। খিচুড়ি । উপকরণ।--কামিনী আতপ এক পোয়া, খাড়ি বা আস্তমসুর* আধ পোয়, কড়াইণ্ডটি আধ পোয়, দুধ আধ পোয়, হলুদ আধ গিরা (এক দুয়ানি পরিমাণ), কাচা লঙ্ক তিন চারিট, বড় পেয়াজ চারিট, আদা এক তোলা, জল পাচ পোয়, দালচিনি সিকি তোলা, লঙ্গ দশটা, ছোট এলাচ দুইট, তেজপাত দুইটা, মুন এক তোলা । ধি দেড় ছটাক, একটি বড় পেঁয়াজ, দারচিনি সিকি তোলা, ছোট এলাচ দুইটা, লঙ্গ দশট । এই গুলি ঘি দাগ দিবার আলাদা মসলা । প্রণালী –চাল ডাল ও কড়াইগুটি ঝাড়িয়া বাছিয়া একত্র পুঞ্জ রগড়াইয়া জলে ধুইয়া লও। আদা ও হলুদ শিলে পিষিয়া রাখ। চারিট লঙ্কার একটা মাত্র লঙ্ক আধখানা করিয়া, চিরিয়া রাখিতে হইবে ; অবশিষ্ট সমস্তই আস্ত রাখিয়া দিবে। লঙ্কাটী চিরিয়া দিলে ঈষৎ ঝাল হইয়া খিচুড়ি অধিক মুখ রোচক হইবে। চারিট পেঁয়াজ কুচাইয়। রাখিতে হইবে।

  • ভাঙ্গা মহরে বেশী কাকড় প্রভুতি থাকে বলিয়াই উহার পরিবর্তে আন্ত মসুর ব্যবহার করাই ভাল ।