পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/২২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমিষ ও নিরামিষ আহার। ماده আধখানা, লঙ্গ আট দশটা, দালচিনি আধ তোলা, ছোট এলাঁচ তিনটা, নারিকেল একট, জল ছুসের, জিরা আধ তোলা, শুল্ফ শাক এক তোলা, কাচা লঙ্কা তিন চারিটা, ঘি দু ছটাক, মুন দেড় ভোলা । প্রণালী । —একটা নারিকেল কোরা সমস্তটা দু সের গরম জলে গুলিয়া, খুব নিংড়াইয়। নিংড়াইয়া যতটা পার ক্ষুধ বাহির কর। নারিকেল ছধে চাল, ডাল, হলুদ বঁটা, ছ তোলা মাত্র আদ বঁটা, লঙ্কা মরিচ বঁটা, লঙ্গ,দালচিনি ও ছোটএলাচ গুলি ছাড়িয়া, সব একত্র আগুনে চড়াও । হাড়ি ঢাকিয়া রাখ। জল ফুটিয়া উঠিলে, খুস্তি বা হাত দ্বারা নাড়িয়া দিয়া, তিন চারিটা কাচা লঙ্ক অস্তি ফেলিয়া দিবে। ডাল গলিলেই দেড় ভোলা মুন দিবে। কুড়ি পচিশ মিনিটে খিচুড়ি হইয় গেলে, নামাইবে । খিচুড়ি নামাইয়৷ ডাল ঘুটুনি দ্বার খুব ঘুটিয়া দিবে। এইবারে আরেকট হাড়িতে আধ কঁাচ্চাটাক ঘি চড়াইয়া, উহাতে শুলুফ শাক গুলা ছাড়িয়া ভাজ। চার পাচ মিনিটে, ভাজ। হইলে শাকগুলা খুস্তি করিয়া উঠাইয়া, খিচুড়ির সঙ্গে মিশাইয়। দাও । শাকগুলা ভাজা হইলে, ঐ হাড়িতেই ছু ছটাক ঘি চড়া , i ঘি গরম হইলে উহাতে জিরা বাট ও অাধ তোলা আদ; ধtট এক কাচ্চাটাক জলে গুলির ছাড়। খুন্তি দ্বারা ফঁাড়ি ঘষিয়া, ঘষিয়া ক্রমাগত নড়িতে থাক। মিনিট তিন চারি নাড়িয়া, খিচুড়ির হাড়ি হইতে খানিকটা খিচুড়ি উহাতে ঢাল। নাড়িয়া চড়িয়া এই খিচুড়িটা মসলা কষা হাড়ি হইতে খিচুড়ির হাড়িতে ফের ঢাল; এইবারে খিচুড়ির হাড়িটা আরেকবার আগুণে চড়াও — ফুটিতে আরম্ভ করিলেই নামাইয়া রাখ। ।